fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশব্লগহেডলাইন

করোনা মোকাবিলা বিশ্ব আজ মহাগুরু মানছে মোদিকে!

রক্তিম দাশ, কলকাতা: মারণ ভাইরাস করোনা বিরুদ্ধে ভারত যে আপোসহীন লড়াই চালাচ্ছে তা চমকে দিয়েছে বিশ্ববাসীকে। মার্কিন প্রেসিডিন্ট ট্রাম্প, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে শুরু করে তাবড় তাবড় রাষ্ট্রনেতা প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রশংসায় পঞ্চমুখ। করোনা মোকাবিলায় এই মুহূর্তে নরেন্দ্র মোদিকেই বিশ্বগুরু মানছেন পৃথিবীর রাষ্ট্রনায়করা।

দেশবাসীকে সর্বাত্বকভাবে উদ্ধুদ্ধ করে মোদি লড়াই শুরু করেছেন এই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে। এই লড়াইয়ে বিশ্বকে পথ দেখাবে ভারত এমনই বলেছেন তিনি।

সম্প্রতি ‘মন কি বাত’-এ মোদি বলেছিলেন, ‘এই মহামারীর বিরুদ্ধে লড়ছে সারা বিশ্ব। ভবিষ্যতে এই মহামারীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ নিয়ে আলোচনা হবে। এর বিভিন্ন ঘটনা স্মরণ করা হবে। আমি নিশ্চিত ভারতের জনগণের এই লড়াই সারা বিশ্বে আলোচিত হবে।’
মোদির এই কথাটি কিন্তু ফলে গিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইট করে বলেছেন, ‘নরেন্দ্র মোদির বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারী পরিচালনা, ভারতীয়দের প্রতি যত্ন নেওয়া এবং এইরকম চ্যালেঞ্জিং সময়ে বিশ্ব সম্প্রদায়কে সহায়তা করার উদ্যোগে প্রশংসা করছে সমগ্র বিশ্ব।’
মার্কিন প্রেসিডিন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন,‘ কঠিন সময়ে পাশে দাঁড়ানোই বন্ধুত্ব। মোদির নেতৃত্ব শুধু ভারত নয় সারা বিশ্বের জন্য উপকারি।’ ভারতে হু-র  প্রতিনিধি হেঙ্ক বেকেডামের এর কথায়,‘ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ভারত সরকার ও প্রধানমন্ত্রীর দফতরের দায়বদ্ধতা অসাধারণ। এজন্যই ভারতে সংক্রমণ এখনও পর্যন্ত অনেক কম। যে ভাবে সব কিছু করা হয়েছে, তাতে আমি প্রভাবিত।’
বিশ্বের সব থেকে ধনীতম ব্যক্তি তথা মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা, বিল গেটস প্রধানমন্ত্রী মোদির এই প্রচেষ্টার প্রশংসা করে বলেছেন,‘ আমরা আপনার নেতৃত্বের প্রশংসা করি এবং আপনি এবং আপনার সরকার ভারতে করোনা সংক্রমণের হার কমিয়ে আনার জন্য এবং দেশবাসীর স্বাস্থ্যের নিরাপত্তার জন্য যে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন তা প্রশংসনীয়।’ বিল গেটস আরও বলেছেন,‘আরোগ্য সেতুর মতো অ্যাপ চালু করে ডিজিটাল অভিনবত্বের সূচনা করেছেন। আমি আনন্দিত যে আপনার ব্যতিক্রমধর্মী ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার করেছেন। কোভিড-১৯-এর মোকাবিলায় সূচনা করেছেন আরোগ্য সেতুর মতো অ্যাপ।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানোম গেব্রেয়েসাস টুইট করে বলেছেন,‘সঙ্কটের সময়ে জনগণকে সাহায্যের জন্য ২৪ বিলিয়ান ডলার প্যাকেজ ঘোষণার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা করি। ৪০০ মিলিয়ান মানুষকে বিনামূল্যে খাবার দেওয়া, ২০৪ মিলিয়ান মহিলার অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া ও ৮০ মিলিয়ান মানুষকে বিনামূল্যে রান্নার গ্যাস দেওয়ার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করি।’

চরম সমলোচক নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেনও আজ মোদির পাশে। তিনি বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী করোনা সংকটের গুরুত্ব অনেক রাষ্ট্রনেতার চেয়ে আগে বুঝেছেন।’ এমনকি পাক ক্রিকেটার সোয়েব আখতারও নমোর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তিনি বলেছেন,‘মোদির বড় সিদ্ধান্ত লকডাউন কার্যকর। এ দুঃসময়ে যেটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

আর এসব প্রশংসায় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে করোনা মোকাবিলায় বিশ্বের অন্যসব রাষ্ট্রপ্রধানের চেয়ে এগিয়ে রেখেছে। তার প্রমাণও মিলেছে সম্প্রতি বিশ্ব ব্যাপি একটি সমীক্ষায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মার্কেট রিসার্চ কোম্পানি ‘মর্নিং কনসাল্ট’-এর সমীক্ষা অনুযায়ী, বিশ্বের অন্যান্য উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলির তুলনায় ভারত অনেক ভালভাবে করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করছে। এ মাসে প্রধানমন্ত্রী মোদির অ্যাপ্রুভাল রেটিং বেড়ে হয়েছে ৬৮, যা এ বছরের জানুয়ারিতে ছিল ৬২।

এক্ষেত্রে বিশ্বের সব রাষ্ট্রনায়কের চেয়ে এগিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী। ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত তাঁর অ্যাপ্রুভাল রেটিংই সবচেয়ে বেশি। এই রেটিং মোদি পিছনে ফেলে দিয়েছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্র্যাম্প, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট জন মরিসন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মর্কেল, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাঁকর, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট লোপেজ অবরাডরকে।

 

Related Articles

Back to top button
Close