fbpx
অসমএকনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

বিজেপিকে পরাস্ত করতে পারে, এমন দল নেই অসমে!

স্টাফ রিপোর্টার, গুয়াহাটি: বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে অনেক দিন ধরেই মহাজোট গঠনে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন সাংসদ অজিত ভুইয়াঁ। কিন্তু তাঁর আহ্বানে আজ অবধি তেমন সাড়া মেলেনি। তাই হতাশ হয়েই সম্ভবত মোক্ষম কথাটা আজ বলে ফেলেছেন তিনি। ‘বিজেপি হারাতে পারে, আজকের দিনে অসমে এমন কোনও রাজনৈতিক দলই নেই। কারণ, প্রভাব, পতিপত্তি, অর্থবল, বাহুবল বিজেপির এতটাই বেড়েছে যে একা কোনও রাজনৈতিক দলের পক্ষেই বিজেপিকে পরাস্ত করা সম্ভব নয়, মনে করেন ভুইয়াঁ।

তবে এখন তিনি বলছেন, অভিন্ন ন্যূনতম কর্মসূচির ভিত্তিতে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একজোট হোক সব আঞ্চলিক দল। আসু-জাতীয়তাবাদী যুব পরিষদের উদ্যোগে গঠিত অসম জাতীয় শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি জোট গড়া নিয়ে কংগ্রেস যেভাবে এক পা, এগিয়ে দু পা পিছোচ্ছে, তার তীব্র সমালোচনা করেছেন ভুইয়াঁ। তাঁর মতে, নভেম্বরে শেষ পর্যায়ে এসেও জোট গঠন নিয়ে কোনও দৃঢ়তার সঙ্গে কোনও পদক্ষেপ পারেনি কংগ্রেস। এটা কংগ্রেস নেতাদের ব্যর্থতা প্রমাণ করছে। বিহারের ভোট থেকে শিক্ষা নিতে হবে তাদের’। কিন্তু অসম জাতীয় পরিষদ জানিয়েছে তারা কিছুতেই কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন মহাজোটে শামিল হচ্ছে না। অজিত ভুইয়াঁর সমালোচনা করে পরিষদের নেতা অদিপ ফুকনোর মন্তব্য, ‘ মহাজোট সব আঞ্চলিক দলের যোগ দেওয়া ঠিক নয় বলে আমরা মনে করি। জাতীয় পরিষদ কখনই জোটের অংশীদার হবে না। কিন্তু কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না গেলে কাউকে যদি বিজেপির এজেন্ট বলা হয়, তাহলে সেই ব্যক্তি একজন কংগ্রেসের এজেন্ট। কারণ, এজেন্ট হওয়ার ফলেই একথা বলছেন তিনি। বিজেপিকে হারানো কঠিন দাবি করলেও ভুইয়াঁকে অসমের মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে বলেছেন হিমন্তবিশ্ব শর্মা। তাঁর মন্তব্য, ‘অজিত ভুইয়াঁ আগে আজমলের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করুন। তাঁর অনেক পাপ হয়েছে, আর যাতে পাপ না নেন। তিনি আজমলের দোয়ায় তাঁর একজন দাস হিসেবে রাজ্যসভায় গেলেন, এর চেয়ে আর বেশি কি হতে পারে।

আরও পড়ুন:দেশবাসীকে দীপাবলির শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে মহাজোট গঠনের গুরুত্ব ফের তুলে ধরেন সাংসদ অজিত ভুইয়াঁর বক্তব্য, ‘মহাজোট গঠন সময়ের দাবি। এই দাবিকে উপেক্ষা করা হলে মৌলিক ইস্যগুলি সমাধানের ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে প্রবঞ্চনা করা হবে। বিহারের ভোট থেকে শিক্ষা নিতে হবে আমাদের, বিশেষ করে কংগ্রেসকে। বিহারের ফল দেখিয়েছে, কংগ্রেসের অনেক গণ্ডগোল রয়েছে। এর জন্যই ভালো হয়নি মহাজোটের ফল। অসমে বিগ ব্রাদার হচ্ছে কংগ্রেস, জোট গঠনে তাদের দায়িত্ব বেশি। তাই গোঁড়ামির দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করে উদার মনোভাব নিয়ে এগোতে হবে তাদের’।

Related Articles

Back to top button
Close