fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কলকাতা বিমানবন্দরের জেনারেল ম্যানেজার পদে এই প্রথম মহিলা আধিকারিক

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দমদম নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের জেনারেল ম্যানেজার পদে বসলেন এই প্রথম এক মহিলা আধিকারিক। কলকাতা বিমানবন্দরের ইতিহাসে এই প্রথম জেনারেল ম্যানেজার দায়িত্ব পেলেন ৫৩ বছর বয়সী শ্যামলী হালদার। নতুন জেনারেল ম্যানেজারের প্রথম লক্ষ এটিসির আধুনিকীকরণ। কলকাতা বিমানবন্দরের সাফল্যের গৌরব ধরে রাখা তার কাছে চ্যালেঞ্জ।

আদতে মহারাষ্ট্রের নাগপুরে বাসিন্দা শ্যামলী। এই মহিলা আধিকারিকের প্রথম কর্মজীবন শুরু হাজার ১৯৮৯ সালে নাগপুর বিমানবন্দরে। তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। কলকাতা বিমানবন্দরে এটিসি দায়িত্বভার বুঝে নেওয়ার আগে তিনি ঝাড়খণ্ডের রাচির বিমানবন্দরে ডেপুটি ম্যানেজার পদে ছিলেন। তার আগে ছিলেন আসামের গুয়াহাটি বিমানবন্দর জয়েন্ট জেনারেল ম্যানেজার।

কলকাতা বিমানবন্দরে জেনারেল ম্যানেজারের দায়িত্ব গ্রহণের পর শ্যামলী হালদার বলেন, “মনোযোগ সহকারে কাজ করে এই স্থানে এসেছি। তিনি কাজের ক্ষেত্রে পুরুষ নারীর কোন ভেদাভেদ নেই পরিশ্রমের বিকল্প নেই আর এই সাফল্যের শিখরে পৌঁছে যায়”। সাম্প্রতিক সময়ে কলকাতা বিমানবন্দরে এসএসসির ব্যাপক আধুনিকীকরণ হয়েছে তা সত্বেও কিছু জায়গায় রয়েছে যেখানে আরো আধুনিকীকরণ করা গেলে কাজের ক্ষেত্রে সুবিধা হবে। তবে কি কি সেই ক্ষেত্রে এই বিষয়টি যেহেতু ক্লাসিফাইড তাই সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে ভাগ করতে চাননি। তবে সূত্রের খবর কলকাতা বিমানবন্দরের কয়েকটি রেডারের আধুনিকীকরণ করা দরকার।

প্রসঙ্গত এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের বিষয়টি বিমানবন্দরের ক্ষেত্রে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। কারন বিমানবন্দরের অসামরিক ও সামরিক সমস্ত বিমানের ওঠানামা নির্ভর করে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের উপর। নিমিষের ভুলে ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা। চলে যেতে পারে যাত্রী ও পাইলটের প্রাণ। যদিও কলকাতা বিমানবন্দরে এটিসি গাফিলতির জেরে বিমান দুর্ঘটনা গত এক দশকে হয়নি। বরং বিমানবন্দরের ইতিহাস এটিসির আধিকারিকরা দক্ষতাযর সঙ্গে বহু সফল ইমার্জেন্সী ল্যান্ডিং করিয়ে বিমান দুর্ঘটনা এড়িয়েছেন। এটিসির কাজে অনেক ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আবহাওয়া। সেই বাধা কাটিয়ে কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই প্রধান লক্ষ্য শ্যামলী হালদারের।

Related Articles

Back to top button
Close