fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রাচীন মা মহামায়া পাটের দুর্গাপুজোয় এই প্রথম সাধারণ মানুষ অঞ্জলি দিতে পারবে না

জেলা প্রতিনিধি, দিনহাটা: প্রাচীন মা মহামায়া পাটের দুর্গাপুজোয় এই প্রথম সাধারণ মানুষ অঞ্জলি দিতে পারবে না। করোনা আবহে ভক্ত প্রাণ মানুষের ভিড় এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেয় উদ্যোক্তারা। পুজো উদ্যোক্তাদের এই সভায় সাধারণের অঞ্জলি দেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও পুজোতে কোনরকম ভোগের সামগ্রী নেওয়া হবে না । বিলি করা হবে না কোনরকম প্রসাদ। দেওয়া হবে না চরণামৃত বলেও পুজো কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় পুজো মণ্ডপে ভিড় এড়াতে শতবর্ষ প্রাচীন এই পুজোয় পুজো উদ্যোক্তারা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেও উল্লেখ করেন অনেকেই। এ বছরেই পুজো ১৩০ তম বর্ষ বলেও উদ্যোক্তারা জানান। পুজো মণ্ডপে ভিড় এড়াতে আগে থেকেই প্রস্তুতি শুরু হলেও এবার বাইরের কেউ অঞ্জলি দিতে পারবে না। মন্দিরে পুরোহিত এবং উদ্যোক্তাদের একজন থেকে অষ্টমীতে পুজো সম্পন্ন করবেন বলেও জানা গিয়েছে।

মহামায়া পাট পুজো কমিটি সরকারি বিধিনিষেধ মেনে পুজোর পাশাপাশি অষ্টমীতে অঞ্জলি দেওয়ার ক্ষেত্রে ভিড় এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ওইদিন মন্দির প্রাঙ্গণে অনেকটাই ভিড় করা সম্ভব হবে বলেও মনে করছেন অনেকে। করোনাকালে এবছর কঠিন সময়ের মধ্যে দুর্গাপুজো হচ্ছে। পুজোর সংক্রমণের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও ইতিমধ্যে চিকিৎসক মহল উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তাই আগামী দুর্গাপুজোয় সকলকে আরও সচেতন থাকার কথা বলেন চিকিৎসকরা।

জানা গিয়েছে, ১৮৯১ সালে কোচবিহারের মহারাজার উদ্যোগে ডুয়ার্সের জায়গা থেকে বর্তমান বাংলাদেশের রংপুর পর্যন্ত রেল যোগাযোগের জন্য রেল লাইন পাতার কাজ চলছিল। সেই কাজ চলাকালীন বামনহাট এলাকায় এক শ্রমিক গোলাকার একটি পাথরের টুকরো পেয়েছিল। তার মধ্যে দেবী দুর্গার অববয় খুঁজে পান ওই শ্রমিক। প্রবীনদের মতে সেই শিলাকে প্রতিষ্ঠা করে তখন থেকেই পুজো শুরু করেন শ্রমিকরা।

আরও পড়ুন: বিধ্বংসী আগুন চিৎপুরের প্লাস্টিক কারখানায়, ঘটনাস্থলে দমকলের ১০টি ইঞ্জিন

উদ্যোক্তাদের কালীপদ পাল, বিভুরঞ্জন সাহা, সমীর সাহা, সুবীর দত্ত, দিলীপ রায় প্রমুখ জানান, এবছর করোনা আবহে পুজার ক্ষেত্রে মন্দিরে ভিড় রোধ করতে বাইরের কেউ অষ্টমীতে অঞ্জলি দিতে পারবে না বলে সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়াও কোনরকম প্রসাদের সামগ্রী যেমন নেওয়া হবে না তেমনি প্রসাদ বিতরণ করা হবে না।” করোনা আবহে প্রাচীন এই পুজোর উদ্যোক্তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুজোর পাশাপাশি ভিড় এড়াতে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেও উল্লেখ করেন অনেকেই।

Related Articles

Back to top button
Close