fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

এবার মাতা বৈষ্ণোদেবী মন্দিরে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বাইরে থেকে ৫০০ জন ভক্তের প্রবেশের অনুমতি মিলল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আবহে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হতেই আগামী ১৬ আগস্ট থেকে খুলেছে মাতা বৈষ্ণোদেবী মন্দিরে দরজা।শনিবার বৈষ্ণোদেবী শ্রাইন বোর্ড জানিয়েছে, প্রতিদিন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বাইরে থেকে ৫০০ জন দর্শনার্থী মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবে। জানানো হয়েছিল প্রতিদিন মাত্র ২০০০ জন ভক্ত মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন। প্রথম সপ্তাহে এই ২০০০ জনকেই যাত্রা করার অনুমতি দেওয়া হবে। এরমধ্যে ১৯০০ জন জম্মু ও কাশ্মীর থেকে এবং ১০০ জন বাইরের পুণ্যার্থী।

প্রথম সপ্তাহে পুণ্যার্থীদের মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার পর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হবে। তারপর আরও পূণ্যার্থীকে মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে কিনা, তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মার্চের ১৮ তারিখ থেকে পূণ্যার্থীদের জন্য বন্ধ হয় মাতা বৈষ্ণোদেবীর মন্দির। প্রায় পাঁচ মাস পর খুলে যায় মন্দিরের দরজা। একাধিক নিয়ম জারি করা হয় পূণ্যার্থীদের জন্য।

শ্রাইন বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দর্শনার্থীদের যাতে কোনও অসুবিধে না হয় তার জন্য ব্যাটারিচালিত যানবাহন, যাত্রী রোপওয়ে, হেলিকপ্টারের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। সেইসঙ্গে সামাজিক দূরত্ব, করোনা বিধিনিষেধ সব দিকে কড়া নজর থাকবে। সেইসঙ্গে দর্শনার্থীদের জন্য বিনামূল্যে কমিউনিটি কিচেনেরও ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

পাশাপাশি ‘শ্রদ্ধা সুমন বিশেষ পুজো’র জন অনলাইনে বুকিং করতে পারবেন। সেইসঙ্গে মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রেও অনলাইনের মাধ্যমে বুকিং করতে হবে। ভিড় এড়াতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। প্রবেশের আগে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরতে হবে, ও প্রত্যেক দর্শনার্থীর থার্মাল চেকিং করা হবে। তবে করোনা কারণে ঝুঁকি এড়াতে ১০ বছরের কম, ৬০ বছরের বেশি বয়স, অন্তঃসত্ত্বা মহিলা, শারীরিকভাবে অসুস্থদের এবছর যাত্রা করতে বাতিল করতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন:করোনাবিধি মেনে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে রাজ্যের সমস্ত জঙ্গল, খুশির হাওয়া পর্যটকমহলে

জম্মু-কাশ্মীরের রেড জোন থেকে যেসব দর্শনার্থীরা আসবেন তাদের প্রথমে ‘যাত্রা’ হেলিপ্যাডের প্রবেশ পথ দর্শহানি দেওদি, বানগাগা, কাটরায় কোভিড টেস্টের রিপোর্ট দেখে তবেই যাত্রার অনুমতি দেওয়া হবে। যাদের রিপোর্ট নেগেটিভ আসবে তারাই কেবল মাত্র এই যাত্রার অনুমতি পাবে।

Related Articles

Back to top button
Close