fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

এবার খুন বিজেপি যুবনেতা! চাঞ্চল্য নদিয়ায়, কাঠগড়ায় তৃণমূল

রক্তিম দাশ, কলকাতা: ব্যাক টু ব্যাক রাজনৈতিক খুন! হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের পর এবার নদিয়া ভীমপুরে বিজেপির সক্রিয় কর্মী বাপি ঘোষকে তৃণমূল দুষ্কৃতীরা বাঁশ ও লোহার রড় দিয়ে পিটিয়ে খুন করার হয়েছে বলে অভিযোগ করল বিজেপি। এই ঘটনায় তৃণমূলকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে বিজেপি।

জানা গিয়েছে, গত মঙ্গলবার নদিয়া জেলার কৃষ্ণনগর শহরের কাছে ভীমপুরে গলাকাটা গ্রামে একটি জমি সংক্রান্ত সালিশি সভার পর বিজেপির সক্রিয় কর্মী বাপি ঘোষ (৩৯)-কে একদল দুষ্কৃতী বাঁশ এবং লোহার রড দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। তাঁকে মাটিতে ফেলে পেটানো হয় বলে অভিযোগ। মারাত্মক জখম অবস্থায় বাপি ঘোষকে স্থানীয় শক্তিনগর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে কলকাতায় পাঠিয়ে দেন। কলকাতার এনআরএস মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসারত অবস্থায় বুধবার বিকালে তাঁর মৃত্যু হয়। বাপি ঘোষের দেহ ময়নাতদন্তের পর বৃহস্পতিবার তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

এদিন বিকালে কলকাতা থেকে বাপি ঘোষের মৃতদেহ নিয়ে ভীমপুরে যান বিজেপির যুবমোর্চার সভাপতি তথা সাংসদ সৌমিত্র খান। তিনি বলেন, বিধায়ককে খুন করেও এদের শান্তি হল না। এরপর আমাদের কর্মী বাপি ঘোষকে খুন করা হল পিটিয়ে। বাংলা জুড়ে আজ খুনের রাজনীতি চলছে।’

আরও পড়ুন:মাইক্রোবায়োলজি ল্যাবেই ৬ জন চিকিৎসকের সংক্রমণ, করোনা পরীক্ষা বন্ধের নির্দেশ কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে

বিজেপির নদিয়া উত্তর জেলার সভাপতি আশুতোষ পাল অভিযোগ করেছেন তাঁদের কর্মী বাপি ঘোষকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘পোড়াগাছা -১ গ্রামপঞ্চায়েতের অর্ন্তগত গলাকাটা গ্রামে বাপি ঘোষ আমাদের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। এই পঞ্চায়েত আমাদের দখলে রয়েছে। গত লোকসভা ভোটে এই গ্রাম থেকে বিজেপি এগিয়ে ছিল। মঙ্গলবার পাশের গ্রাম ভারজংলা পূর্বপাড়া সঙ্গে একটি জমি সংক্রান্ত বিবাদের সালিশিতে উপস্থিত ছিল বাপি। সালিশি শেষ হওয়ার পর সে একটি মোটরবাইকে উঠে চলে যাওয়ার সময় তাঁকে প্রকাশ্য দিবালোকে তৃণমূল হার্মাদ বাহিনী খয়েরুদ্দিন শেখের নেতৃত্বে দৃষ্কৃতীরা নৃশংসভাবে আক্রমণ করে। বাঁশ এবং লোহার রড মাটিতে ফেলে পেটানো হয়। মারাত্মক আহত অবস্থায় বাপি বুধবার বিকালে কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করে।’

আরও পড়ুন:অবশেষে ‘Consular access’ পেলেন কূলভুষন

আশুতোষ পাল আরও বলেন,‘ এই পরিকল্পিত বিজেপি কর্মী খুনের প্রতিবাদে নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার পক্ষ থেকে দোষী ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতার এবং উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে শুক্রবার সকাল ছয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ভীমপুর থানা সংলগ্ন এলাকায় সহ শান্তিপূর্ণ বনধ্ এবং সারা নদিয়া জেলা উত্তর জুড়ে রাস্তা অবরোধের ডাক দেওয়া হয়েছে।’

এদিকে, এদিন মৃত বাপি ঘোষের বাড়িতে যান রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার, বিজেপির কিষান মোর্চার সভাপতি মহাদেব সরকার। অভিযোগ পুলিশ তাঁদের বাধা দেয়। এরপরেই স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা পথ অবরোধে বসে পড়েন। জগন্নাথ সরকার বলেন,‘ ঘটনায় পুলিশ দোষীদের আড়াল করার চেষ্টা করছে। সেকারণেই প্রকৃত দোষীদের নাম দেওয়া হয়নি অভিযোগ পত্রে। আমরা পুলিশকে বলেছি, প্রকৃত দোষীদের নামে এফআইআর করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক।

Related Articles

Back to top button
Close