fbpx
অন্যান্যঅফবিটপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাস উৎসব এবারে শুধু মদনমোহন বাড়িতে, বসছে না মেলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কোচবিহার: কোচবিহার তথা উত্তরবঙ্গ ও নিম্ন আসামের সবথেকে বড় মেলা রাসমেলা এবার হচ্ছে না। প্রায় ৩০০০ ব্যবসায়ীর ব্যবসায় আধাত পড়ল কোচবিহার জেলা প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে।  করোনা আবহে কোচবিহার মদনমোহন মন্দিরের ভেতরে রাস উৎসবের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালিত হলেও ঐতিহ্যবাহী রাসমেলা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন । মেলার মাঠে একটিও খুঁটি বসানো হবে না বলে জানালেন কোচবিহার পৌরসভার পৌর প্রশাসক ভূষণ সিং। রাসমেলা হবে কি হবে না তাই নিয়ে বেশকিছু দিন থেকেই কোচবিহার বাসিদের মোনে সংশয় ছিল। আজ পাকাপাকি ভাবে জানিয়ে দেওয়া হোল মেলা হচ্ছে না।

দুশো বছরেরও বেশী পুরনো কোচবিহারের রাজ আমলের মদনমোহনের এই রাস উৎসব। প্রতিবছর রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে কোচবিহার এমনকি ভিন জেলা ও আসাম থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষের সমাগম ঘটে মদনমোহন মন্দিরের এই রাস উৎসবে। এই উৎসব কে কেন্দ্র করেই বিরাট মেলা বসে কোচবিহারে। প্রায় ৫০০০ এর বেশি ছোট বড় দোকান নিয়ে এই মেলা হয়।মদনমোহন মন্দিরের রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে কোচবিহার পৌরসভার পক্ষ থেকে প্রতিবছর রাসমেলা ময়দানে এই মেলার আয়োজন করা হয়। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি নেপাল, ভুটান, বাংলাদেশ থেকেও বহু ব্যবসায়ীরা এই মেলায় দোকান নিয়ে আসেন।

১৫ থেকে ১৮ দিন ব্যাপী চলে এই রাসমেলা। কিন্তু এবছর করোনা মহামারীর কারণে সেই মেলা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।পৌরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়, মেলার মাঠে কোন মেলা বসবে না । তার পরিবর্তে অন্য কোথাও সেলফ্‌ হেলফ্‌ গ্রুপের বিভিন্ন স্টল বসিয়ে তাদের তৈরী করা জিনিসপত্র বিক্রি করার সুযোগ করে দেওয়া হবে । বাইরের কোন ব্যবসায়ী থাকবেন না। এমনকি মাঠেও কোনো ব্যবস্থা হবে না।

যদিও বা এই সিদ্ধান্তে কিছুটা মন খারাপ কোচবিহারের। কারন এই মেলা কোচবিহারের একান্তবনিজশ্ব উৎসব। সাধারন মানুষের কোথায় ছটো করে হোলেও মেলা হোক। প্রচুর ছোট ব্যবসায়ো এই মেলার দিকে তাকিয়ে থাকে, তাদের রুজি রোজগার মেলার ওপরে চলে, সেক্ষেত্রে সে সব পরিবার গুলির সমস্যা হবে। যাযাবর জন জাতীর প্রচুর মানুষ আসেন মেলায়, তাদেও ক্ষতি। একদিকে করোনা র কারনে সাধারিন মানুষের রুজি রোজগার প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম, তাতে মেলা বন্ধ হলে তারা মাঠে মারা যাবে। যদিও বা এই নিয়ে এখন কনো রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব কোন মন্তব্য করেন নি। বিজেপি জেলা সভা নেত্রী মালতী রাভা সিদ্ধান্ত কে পূনঃবিবেচনার দাবি রেখেছেন।

Related Articles

Back to top button
Close