fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

করোনা আবহে এবার চিন-অস্ট্রেলিয়া বিবাদ তুঙ্গে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে চিন, এই অভিযোগ তুলে চিনের বিরুদ্ধে একাধিকবার আন্তর্জাতিক স্তরে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তার পর থেকেই একাধিক দেশের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে চিনের। এমনকি সম্প্রতি ভারতের সঙ্গেও সীমান্ত নিয়ে দ্বন্দ্ব চরমে। এবার অস্ট্রেলিয়া সঙ্গেও চিনের বিবাদ তুঙ্গে।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চিন থেকে ফেরা মানুষদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল অস্ট্রেলিয়া। পরিস্থিতি বুঝে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত প্রতি সপ্তাহে পুনর্মূল্যায়ন করে অস্ট্রেলিয়া। তবে অস্ট্রেলীয় নাগরিক, স্থায়ী বাসিন্দা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত ছিল। যার অর্থাৎ মূলত চিনাদের দেশে ঢোকার উপর নিষেধআজ্ঞা জারি করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন: কালিন্দী নদী থেকে উদ্ধার নিখোঁজ যুবকের মৃতদেহ 

এদিকে এই আবহে এবার চিন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জাতিগত বিদ্বেষের অভিযোগ এনে বিস্ফোরক নির্দেশিকা জারি করেছে। চিনা নাগরিকদের অস্ট্রেলিয়াতে যাওয়া থেকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে সম্প্রতি প্রকাশিত এই নিষেধাজ্ঞায়। অস্ট্রেলিয়ার সরকার থেকে জাতি বা বর্ণ বিদ্বেষের এই বিষয়টি নাকচ করে দেওয়া হলেও গত কয়েকদিনে একাধিক রিপোর্ট বেরিয়েছে, যেখানে দেখা গিয়েছে যে এশিয়ান দেখতে অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকদের উপর হামলা হয়েছে। করোনা সংক্রমণ বাড়তেই এই হামলা বেড়েছে।

এই বিষয়ে চিনের কালচারাল অ্যান্ড টুরিজম মন্ত্রক নির্দেশিকা জারি করে বলেছে, ‘অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণরত চিনা নাগরিক ও সেখানে থাকা পড়ুয়াদের আমরা সতর্ক করে দিতে চাই। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়াতে এশিয়ানদের বিরুদ্ধে জাতিগত বর্ণ বিদ্বেষ বেড়েছে।’

তবে চিনের এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। সেদেশে ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী মাইকেল ম্যাকক্রোমাক বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়াতে চিনা বংশদ্ভূত ব্যক্তির উপর হামলার ঘটনা ঘটেনি। আমি জানি না চিনের তরফে এরকম নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। আমি সত্যি জানি না ওঁরা কী ভেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

Related Articles

Back to top button
Close