fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

প্রজনন প্রক্রিয়া শেষ…. জন্ম নেবে হাজার হাজার নতুন পঙ্গপাল! সতর্ক ভারত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের ছোবলে ক্রমশ ধুকে পড়ছে অর্থনীতি। তার মধ্যে হঠাৎ উড়ে এসে জুড়ে বসার মতো পঙ্গপালের হানা। যা খেতের মধ্যে ঢুকে ফসল নষ্ট করার কাজ করে চলেছে।

রাজস্থান, পঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাত, মহারাষ্ট্র ইতিমধ্যেই জেরবার পঙ্গপালে প্রবল পরাক্রমে। আর তার বীরদর্পে তাদের কাজ করে চলেছে।পাকিস্তান থেকে রাজস্থানে পৌঁছয় এই পঙ্গপালের দল। তারপর তারা তাদের কাজ বিরামহীনভাবে করে চলেছে।

ইতিমধ্যেই এই পঙ্গপাল এর বিষয়ে ঘুম ছুটেছে কেন্দ্রের। একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন এই পঙ্গপালদের দমন করতে ব্রিটেন থেকে দু সপ্তাহের মধ্যে ১৫টি স্প্রেয়ার আনা হবে। এরপর ৪৫ টি আরও স্প্রেয়ার কেনা হবে। পাশাপাশি উঁচু গাছ ও দুর্গম এলাকায় কীটনাশক ছড়ানোর জন্য ড্রোন ব্যবহার করা হবে।প্রয়োজনে হেলিকপ্টারের সাহায্যেও কীটানুনাশক ছড়ানো হবে।

পঙ্গপালের হামলা থেকে বাঁচার জন্য রাজস্থান , মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র ও উত্তরপ্রদেশে সরকারি কর্মচারীরা কীটানুনাশক ছড়িয়ে তাদের সরানোর চেষ্টা করছে। অন্যদিকে সাধারণ মানুষ থালা বাজিয়ে ও জোরে গান বাজিয়ে পঙ্গপালদের উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

দিল্লি, হরিয়ানা, হিমাচল প্রদেশ, তেলেঙ্গানা ও কর্ণাটকে সরকার পঙ্গপাল আসার রেড অ্যালার্ট জারি করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে পূর্ব মহারাষ্ট্র হয়ে মধ্যপ্রদেশের বালাঘাট জেলায় ঢোকে এই পঙ্গপালের দল। পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের ভান্ডারাতেও ঢুকেছে তারা। এবার তাদের যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বিহার ও ওড়িশাতের দিকে।

 

জানা গেছে, পঙ্গপালরা প্রতি ঘণ্টায় ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটার গতিতে একদিনে ১৫০ কিমি পথ পাড়ি দিতে পারে। তবে এই বার যে পথ পঙ্গপাল পেরোচ্ছে তাতে খেতে কম ফসল থাকায় তারা গাছের পাতা ও অন্যান্য জিনিস খাচ্ছে। তবে ঝাঁসিতে প্রচুর পরিমাণে কীটনাশক স্প্রে করায় তাদের দলের একটা বড় অংশ মারা পড়েছে।

এদিকে জুন মাস থেকে ইথিওপিয়া, কেনিয়া, সোমালিয়ার মরুভূমিতে প্রজনন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ায় হাজার হাজার নতুন পঙ্গপাল তৈরি হবে। তারপর তার গতি হবে দক্ষিণ সুদান ।

Related Articles

Back to top button
Close