fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অনুব্রত কাণ্ডে বিচারককে হুমকি চিঠি,  প্রেরকের দাবি তিনি কিছুই জানেন না

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্ক: গরু পাচার মামলায় অনুব্রত মণ্ডলকে জামিন দিতে হবে। আর জামিন না দিলে বিচারক সহ তার গোটা পরিবারকে। আসানসোল আদালতের বিচারক রাজেশ চক্রবর্তীর কাছে এই হুমকি চিঠি এসেছে। যা নিয়ে তোলপাড় রাজ্য-রাজনীতি। ২০ অগস্ট হুমকি চিঠিটি পান বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী। বিচারক রাজেশ চক্রবর্তীকে এই হুমকি চিঠি পাঠিয়েছেন এক ব্যক্তি। চিঠিটি ইতিমধ্যেই জেলা জজকে পাঠিয়ে দিয়েছেন সিবিআই স্পেশাল কোর্টের বিচারক। ২২ অগস্ট বিষয়টি জেলা জজকে জানান বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী। জানানো হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলকেও।

চিঠিতে লেখা, ‘অনুব্রত মণ্ডলকে জামিনে ছাড়তে হবে দ্রুত। নইলে পরিবারকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হবে।’ বিচারকের দাবি অনুযায়ী চিঠিতে প্রেরকের নাম লেখা রয়েছে বাপ্পা চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি এও নাকি চিঠিতে জানানো হয়েছে, কর্মসূত্রে তিনি বর্ধমানের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের হেড ক্লার্ক ও তৃণমূলের জেলা কর্মচারী সংগঠনের সদস্য।চিঠিতে বাপ্পার নামাঙ্কিত শিলমোহরও ব্যবহার করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের এই প্রশ্ন শুনে কার্যত বিস্মিত হয়ে পড়েন বর্ধমান আদালতের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের হেড ক্লার্ক বাপ্পা চট্টোপাধ্যায়। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এমন কোন চিঠি আমি লিখি নি। চিঠির বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আপনাদের কাছ থেকেই আমি প্রথম এই সব শুনছি। চিঠিতে আপনার নামাঙ্কিত শিলমোহর ব্যবহার হয়েছে, সেটা কিভাবে হল তাও জানি না। বাপ্পা দাবি করেন, তাঁকে ফাঁসানোর জন্য কেউ তাঁর নাম করে চিঠি লিখেছে বিচারককে। তাঁর শিলমোহর নকল করে ও সই জাল কেউ এইসব ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানান বাপ্পা।

বাপ্পার আরও দাবি করেন, তৃণমূল বা কোন রাজনৈতিক দল বা সংগঠনের সঙ্গেও যুক্ত নন। তিনি একজন সামান্য কর্মচারি।

তবে এই হুমকি চিঠি নিয়ে খুব গুরুত্ব দিতে রাজি নন বিচারক বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী।

আসানসোলের এক বর্ষীয়ান আইনজীবীর কথায়, বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী হুমকির কাছে মাথা নত করার মানুষ নন।

Related Articles

Back to top button
Close