fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি নেতার স্ত্রীকে হুমকি, পুলিশ সুপারের কাছে আইসির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: গেরুয়া শিবিরের এক নেতার স্ত্রীকে বিজেপি দল ছাড়ার হুমকি দিলেন স্বয়ং কল্যাণী থানার আই সি মোহেইমেনুল হক। এই অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার রানাঘাট জেলা পুলিশ সুপার ভিএসআর অনন্তনাগের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন ওই বিজেপি নেতার স্ত্রী টুলটুলি দাস। গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, গত বুধবার তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হন নদীয়ার কল্যাণীর ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা তথা কল্যাণী শহর মন্ডলের সাধারণ সম্পাদক শিবু দাস। তৃনমূলের গুন্ডাবাহিনীর হাতে গুরুতরভাবে জখম হন আর এক বিজেপি কর্মী বাবলু সরকার। আক্রান্ত এই দুই বিজেপি কর্মীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কল্যানীর জেএনএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গেরুয়া শিবিরের আরো অভিযোগ, “এরপর কল্যাণী থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে তাঁদেরকে কোনো কারণ ছাড়াই গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে অবশ্য তাঁদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর আক্রান্ত শিবু দাসের স্ত্রী টুলটুলি দাসকে রাতেরবেলা একা থানায় ডেকে পাঠান কল্যাণী থানার আই সি মোহেইমেনুল হক। তাঁকে এবং তাঁর স্বামীকে বিজেপি ছাড়ার হুমকি দেন আই সি”।

এই বিষয়ে অভিযোগকারিণী টুলটুলি দাস বলেন, “আমার স্বামী শিবু দাসকে বেধড়ক মারধর করে তৃণমূল আশ্রিত গুন্ডারা। এই অভিযোগ থানায় জানাতে গেলে কল্যাণী থানার আই সি মোহেইমেনুল হক আমাকে একা থানার ভিতর ডেকে পাঠান। সেখানে গেলে কয়েকজন পুলিশ কর্মীর সামনে আমাকে রীতিমতো হুমকির সুরে বলেন, স্বামী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে বলবেন বিজেপি দল ছাড়তে। আপনারা কেন বিজেপি করছেন? গুন্ডাদের সাথে আপনারা পারবেন না। অযথা আপনাদের জীবন কেন বিপন্ন করছেন।” অভিযোগকারিণী আরো বলেন, “কল্যাণী থানার আই সি রীতিমত তৃণমূলের দালাল হয়ে উঠেছেন। একজন থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার হয়ে কি করে উনি এই হুমকি দিতে পারেন?” প্রশ্ন তোলেন টুলটুলি দাস। আই সির এহেন হুমকির বিরুদ্ধে রানাঘাট জেলা পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন শিবু দাসের স্ত্রী।

আরও পড়ুন: রাস্তা নির্মান কাজের সূচনা করলেন আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সভাধিপতি

এই বিষয়ে কল্যাণী শহর মন্ডল সভাপতি বিশ্বরূপ কুলভী বলেন, “কল্যাণী থানা শাসক দলের আঁতুরঘর হয়ে উঠেছে। সুবজ শিবিরের সমস্ত কাজ এখন থানা থেকেই করা হয়। আমাদের প্রশ্ন শিবু দাসের স্ত্রীকে রাতে একা কেন ডাকা হবে থানায়? কেনই বা টুলটুলি এবং তাঁর স্বামী শিবু দাসকে বিজেপি ছাড়ার হুমকি দেওয়া হবে? একজন আই সি এই হুমকি কিভাবে দিতে পারেন? জেলা থেকে রাজ্য স্তর পর্যন্ত সবাই জানেন কল্যাণী থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার শাসক দলের হয়ে কাজ করেন। এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি আমরা। আই সির বিরুদ্ধে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ জানিয়েছি। তিনি অভিযোগ পত্র গ্রহণ করেছেন।” যদিও এই বিষয়ে পুলিশ সুপার ভিএসআর অনন্তনাগকে ফোন করা হলে তিনি ফোন তোলেননি। তবে অবিলম্বে কল্যাণী থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার মোহেইমেনুল হকের বিরুদ্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে গেরুয়া শিবিরের আন্দোলন আরো জোরদার হবে বলে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেন বিজেপির কল্যাণী শহর মন্ডল সভাপতি বিশ্বরূপ কুলভী।

Related Articles

Back to top button
Close