fbpx
ক্রিকেটখেলাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আইপিএল…বেটিং চক্রের তিন পাণ্ডা গ্রেফতার, নাম জড়ালো এক সিভিক ভলেন্টিয়ারের

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: পর্দা ফাঁস হল আইপিএল মেগা ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট নিয়ে চলা বেটিং চক্রের। গ্রেফতার করা হয়েছে চক্রের তিন পাণ্ডাকে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই বেটিং চক্রের তিনজনকে গ্রেফতার করে। ধৃতরা হল পার্থ সারথি  বিশ্বাস, সুরঞ্জন বিশ্বাস ও কালিচরণ সাউ। ধৃতদের মধ্যে পার্থসারথি ও কালিচরণ মেমারি পৌরসভা এলাকার বাসিন্দা। অপর ধৃত সুরঞ্জনের বাড়ি মেমারির পৌর এলাকা লাগোয় ব্রাহ্মণপাড়ায়। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে বেটিং চক্রে মেমারি ও বর্ধমানের আরও ৯ জন জড়িত রয়েছে। বিশেষ চারটি অ্যাপস মাধ্যমে তারা বেটিং কারবার চালাচ্ছে। কোটি কোটি টাকা লেনদেন হচ্ছে বেটিং কারবারে। চক্রটি  রাজ্য জুড়ে এই বেটিং কারবার চালাচ্ছে বলেও পুলিশ জানতে পেরেছে।পুলিশ তাদেরও খোঁজ চালাচ্ছে।

বেটিং চক্রের বিষয়ে মেমারি থানার সাব ইনস্পেক্টর বুদ্ধদের ঘোষ অভিযোগ দায়ের করেন। তার ভিত্তিতে অর্থ আত্মসাৎ, জুয়া ও প্রতারণার ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

বেটিং চক্রে ধৃতদের কাছ থেকে ৩ টি মোবাইল ফোন, একটি আইফোন ও নগদ ৬০ হাজার টাকা পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। এছাড়াও বেটিংয়ের হিসাবপত্র রাখার খাতা পত্রও পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে।পুলিশ বুধবার তিন ধৃতকে পেশ করে  বর্ধমান আদালতে। বেটিং চক্রের জাল কত দূর বিস্তৃত রয়েছে তা জানতে ও চক্রের রাঘববোয়ালদের নাগাল পেতে তদন্তকারী অফিসার তিন ধৃতকেই ৭দিন নিজেদের হেপাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানান। সিজেএম রতন কুমার গুপ্তা যদিও ধৃতদের ১ দিন পুলিশি হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এতবড় বেটিং চক্রের বিষয়ে তদন্তের জন্য বিচারক ধৃতদের মাত্র ১দিনের পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দেওয়ায় স্তম্ভিত মেমারিবাসী।

পুলিশ জানিয়েছে, সুরঞ্জনের বাড়িতে মঙ্গলবার রাতে চলছিল বেটিং চক্রের  কারবার। বিশেষ সূত্র মাধ্যমে সেই খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে হানা দেয়।পুলিশকে দেখে  কয়েকজন পালালেও ধরা পড়েযায়  সুরঞ্জন ,পার্থসারথি ও কালিচরণ। এই তিনজন ওই সময়ে বেটিং  নিয়ন্ত্রণ করছিল। তিনজনকে  জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে  পারে  ডায়মন্ড-এক্সচেঞ্জ -ডটকম, জিও-এক্সচেঞ্জ -ডটকম, পার্কিং-প্লে-ক্রিকেট, অ্যালাউ৪৪৪ -ডট-বেট ও স্কাইএক্সচেঞ্জ নামে  ৪টি অ্যাপ ব্যবহার করে তারা বেটিং চালায়। মঙ্গলবার রাতেও ওইসব অ্যাপসের আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে তারা আইপিএল ক্রিকেট নিয়ে বেটিং কারবার চালাচ্ছিল ।

জেরায় ধৃতরা পুলিকে জানিয়েছে, বর্ধমান শহর নিবাসী দুই জন ও কলকাতার কয়েকজন এই বেটিং চক্রের অন্যতম হোতা। তারাই নিজেদের এলাকায় বসে গোটা চক্রটি নিয়ন্ত্রণ করেন। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তারা চক্রের লোক ছড়িয়ে রেখেছে। পুলিশের দাবি আইপিএল টুর্ণমেন্ট শুরু হওয়ার পরথেকে কোটি কোটি টাকার লেনদের হচ্ছে। তার জন্য দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

আরও পড়ুন:হাইকোর্টের শূন্যপদে আবেদনের সুযোগ পেলেন ট্রান্সজেন্ডাররা 

জেলা পুলিশের এক কর্তার কথায় জানা গিয়েছে, শুধু আইপিএল ক্রিকেট নিয়েই এই চক্রটি বেটিং কারবার চালায় এমনটা নয়। বিভিন্ন খেলা ও ভোটের ফালাফল  নিয়েও  চক্রটি বেটিং কারবার চালায়। আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ড ডোনাল্ড ট্রাম্প থাকবেন কিনা সেই বিষয়টি নিয়েও চক্রটি বেটিং কারবার চালাচ্ছে বলে তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে। অন্যদিকে  মেমারি শহর তৃণমূল কংগ্রেসের যুব সভাপতি সৌরভ সাঁতরা দাবি করেছেন, বেটিং চক্রে মেমারির দেবীপুর নিবাসী বর্ধমান জিআরপির সিভিক ভলেন্টিয়ার গোবিন্দ ঘোষ জড়িত রয়েছে। পুলিশের খাতাতেও তার নাম রয়েছে। সৌরভবাবু বলেন, অভিযুক্ত ওই সিভিক ভলেন্টিয়ারকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি তারা পুলিশকে জানিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button
Close