fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল ব্লক সভাপতি “ডাকাত”! পোস্টার পড়ল নন্দীগ্রামে

রাজকুমার আচার্য, নন্দীগ্রাম (পূর্ব মেদিনীপুর) : তৃণমূল কংগ্রেসের  আমফান ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে লাগাতার বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে নন্দীগ্রামে। প্রায় ২০০জন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা, কর্মীদের শোকজ এবং ২৫জনকে সাসপেন্ড করেছে নন্দীগ্রাম তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি। এবার সেই কমিটির শীর্ষ স্থানে থাকা ব্লক সভাপতি তথা বিধানসভা কমিটির চেয়ারম্যান মেঘনাদ পাল “ডাকাত”, উল্লেখ করে পোস্টার পড়ল নন্দীগ্রামে! মঙ্গলবার সকালে নন্দীগ্রামের বিভিন্ন জায়গার বিশ্রামাগার, ল্যাম্পপোস্ট, রাস্তার পাশের গাছে মেঘনাদ পালের নামে পোস্টার দেখা যায়। পোস্টারে লেখা, চোর তৃণমূলকে সাসপেন্ড করেছে ডাকাত মেঘনাদ পাল। এই পোস্টারকে ঘিরে নন্দীগ্রামে চাঞ্চল্য ছড়ায়।
 
এ প্রসঙ্গে মেঘনাদ পাল বলেন,”আমফান ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া হয়েছে প্রায় এক মাস আগে। আমার বিরুদ্ধে বিজেপির অভিযোগ করার এক মাসেও সাহস হল না? হঠাৎ করে তাদের মনে হল আমার বিরুদ্ধে কিছু বলার। রাতের অন্ধকারে এরা কাপুরুষের মতো আচরণ করছে। এতে তৃণমূল দলের কোনও ক্ষতি নেই। এর আগেও ওরা পোস্টার দিয়েছিল। ওরা রাতের অন্ধকারে এসব করে, সাহস থাকলে সামনে এসে বলুক। কোনও অভিযোগ থাকলে প্রশাসনিকভাবে অভিযোগ করুক। এইসব  নোংরা খেলা না খেলে স্বচ্ছ রাজনীতি করতে বলব বিজেপিকে।”
বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলা সহ সভাপতি নন্দীগ্রামের বাসিন্দা প্রলয় পাল বলেন,”তৃণমূলের বিরুদ্ধে তৃণমূলের এই পোস্টার নতুন কিছু নয়, এর আগেও হয়েছে। তৃণমূল যে চুরি করছে তা আগেই স্বীকার করেছেন মেঘনাদ পাল। তিনি তাদের  দলের বহুজনকে এই কারণে সাসপেন্ড করেছেন। শিশির অধিকারী বলেছেন,  ওই চোরেদের আর দলে রাখা হবে না। সুতরাং বিজেপি এইসব করতে যাবে কেন? বিজেপি ২১ সালে ক্ষমতায় আসছে। এখন তৃণমূলকে চোর-ডাকাত বলছে তৃণমূলের লোকজন। আমরা কারও বিরুদ্ধে কিছু বললে প্রকাশ্যে বলি, রাতের অন্ধকারে পোস্টার মেরে কী লাভ? তৃণমূল তো কিছুদিন পরে নিজেই পোস্টার হয়ে যাবে!”

Related Articles

Back to top button
Close