fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, পঞ্চায়েত প্রধানের বাড়িতে বিক্ষোভ করতে পাঠানোর অভিযোগ নেতার বিরুদ্ধে

শুভেন্দুু বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল: আসানসোলের রানিগঞ্জ ব্লকের এগরা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রিনা দাসের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখালেন এলাকার কয়েকজন মহিলা। তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে নিয়ে এলাকার কয়েকটি পাড়ার মহিলারা বৃহস্পতিবার বিকেলে ২ ঘন্টাও বেশি সময় ধরে বিক্ষোভ দেখান।

রিনা দাস তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীকে জিতে গত পুর নির্বাচনে জয়ী হয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান হয়েছেন। সন্ধ্যে সাতটার পরে সেই বিক্ষোভ উঠে যাওয়ার পরে রিনাদেবী বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসেরই আঞ্চলিক সভাপতি আশিস বাউরি ঐসব মহিলাকে আমার বাড়িতে পাঠিয়েছিলেন। শুধু এদিন নয় বুধবার রাত সাড়ে নটা নাগাদ বিজেপির কয়েকজন কর্মী বিভিন্ন দাবি নিয়ে আমার বাড়িতে বিক্ষোভ দেখায় ঐ নেতা তাদেরকেও বিক্ষোভ করাতে পাঠিয়েছিলেন বলে আমার মনে হয়।

বিক্ষোভকারীদের দাবি ছিল, ১০০ দিনের কাজের ২০৪ টাকা করে মজুরি দিতে হবে, এলাকায় এলইডি লাইট লাগাতে হবে ও জলের পাইপ লাইন আছে সেখান থেকে ঘরে ঘরে জল নেওয়ার জন্য ট্যাপ নেওয়ার অনুমতি দিতে হবে। আমি তাদের বলেছি, আপনাদের যা কিছু দাবি অফিসে এসে বলুন। বাড়িতে এইভাবে কেন এসেছেন?

তাছাড়া জলের লাইনে অনুমতি আমি এভাবে দিতে পারি না। এই বিষয়টা আমি ব্লক সভাপতি ও বিধায়ক তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানিয়েছি । অন্যদিকে রিনাদেবীর যার বিরুদ্ধে অভিযোগ সেই আশিস বাউরি বলেন, আমি নিজেই দুদিন ধরে অসুস্থ হয়ে রয়েছি। আমার নামে বদনাম করার জন্য এইসব বলা হচ্ছে। আমি তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা হয়ে কেন এইসব করতে যাবো কেন? যারা সমস্যায় পড়েছেন তারা হয়তো গেছিলেন।

তবে গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান দলের নিয়ম ও নীতি মেনে কাজ করছেন না এটা সত্যি কথা।
রানিগঞ্জের তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি দেব নারায়ন দাস বলেন, আমি বিষয়টা শুনেছি। শুক্রবার দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলবো। তারপর যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার নিয়ে আমি জেলা সভাপতিকে জানিয়ে দেবো।

Related Articles

Back to top button
Close