fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুই তৃণমূল গোষ্ঠীর বোমাবাজিতে কেঁপে উঠল পূর্ব মেদিনীপুর

মিলন পণ্ডা, কাঁথি (পূর্ব মেদিনীপুর): লকডাউনে দুই তৃণমূল গোষ্ঠীর মধ্যে বোমাবাজিতে কেঁপে উঠল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি বসন্তিয়া এলাকায়। ঘটনার পর গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায় কাঁথি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে নামানো হয় আরও বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশের সামনেই একাধিক বোমাবাজি করে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর বলে অভিযোগ। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে। যদিও বোমাবাজির ঘটনায় এখনও পর্যন্ত হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। বোমাবাজির ঘটনায় একে অপরের গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তৃণমূল নেতৃত্বরা। এখনো পর্ষন্ত এলাকা উওেজনা রয়েছে।

জানা গিয়েছে, এলাকার তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য নুরজামালের বাড়িতে রান্না করার সময় গ্যাস সিলিন্ডার লিক করে বিস্ফোরণ ঘটে। অপর গোষ্ঠী সেখ মুশারফ সহ অনুগামীরা বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণ ঘটেছে ভেবে তাই বাড়ির উপর বোমা ছুড়ে বলে অভিযোগ। যদিও এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে সেখ মোশারফ। তিনি পাল্টা দাবি করেছেন নুরজামাল সহ অনুগামীরা বাড়িতে বোমা মজুত রাখার সময় বিস্ফোরণ হয়। এলাকায় বারুদের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। ঘটনার পর একে অপরের গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে যথেষ্ঠ হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশকে।

কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি তরুণ জানা বলেন, গোষ্ঠী কোন্দলে কথাটা পুরোপুরি অস্বীকার করেছে। গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য নূরজামাল খাঁন বৌমা রান্না করার সময় গ্যাস সিলিন্ডার লিক করে কিছুটা আগুন লেগে যায়। এরপর জল দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কেন্দ্র করে যারা সিপিএমের হার্মাদ ও তারা সদ্য তৃণমূলে যোগদান করেছে।এখনো তারা কোনো মিটিং ও মিছিলে দেখা যায়নি। পুলিশ পুরো ঘটনাটি তদন্ত করছে।

 

তিনি আরও বলেন সদ্য যোগদান করা তৃণমূলে সিপিএমের আর মাত্র ওই গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য বাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি করছে। পুলিশের উপস্থিতিতে বোমাবাজি করলো।পুলিশ তাদের তাড়িয়ে নিয়ে গেছে।এরা তৃণমূল কংগ্রেস দল করতে আসেনি। তাহলে দলের বিরুদ্ধে এই রকম করতো না।এরা আদৌ সিপিএমে আছে, সিপিএমের ছিল ,সুবিধার জন্য তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছে।দলের বিরুদ্ধে সমস্ত কার্যকলাপ করছে।

এলাকার তৃণমূল কর্মী সেখ মোশারফ বলেন আমরা মন্ত্রীর শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বের তৃণমূল কংগ্রেস দল করি। কে কি অভিযোগ করছে আমার জানা নেই।আমার পাশের বুধে একটি বিস্ফোরণ হয়েছে। এনিয়ে এলাকার মানুষ খুব বিভ্রান্ত। চারিদিকে শুধু বারুটের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। যারা বোমা মজুদ করে রেখেছিল। এই জায়গাটি বিস্ফোরণ হয়েছে। তিনি আরও বলেন পুলিশ প্রশাসনে ঘটনাস্থলে এসেছে। পুলিশ প্রশাসনের কাছে দাবি জানায় সঠিক তদন্ত করে দোষীদের চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি জানায় । যদিও ব্যাপারে পুলিশের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।একাধিকবার কাঁথির পুলিশ আধিকারিককে ফোন করা হলে ফোন ধরেননি। কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

Related Articles

Back to top button
Close