fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এবার প্রকাশ্যে, রাস্তা অবরোধ, বাড়ি ভাঙ্গচুর এলাকায় উওেজনা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কাঁথি (পূর্ব মেদিনীপুর): কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এবার প্রকাশ্যে এল। ঘটনার তৃনমুল উপপ্রধান কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনার জেরে কাঁথি রসুলপুর রাজ্য সড়কের কাঁঠের গুড়ি ফেলে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।শুধু তাই তৃণমূল কর্মীর বাড়ি ভাঙ্গচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। লকডাউনের মাঝেই গোটা এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার সামাল দিতে ছুটে যায় কাঁথি ও জুনপুট উপকুল থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বসন্তিয়া অঞ্চল অফিসের বসেছিলেন তৃণমুলের উপপ্রধান তুষার পাএ।কাঁথি দেশপ্রান ব্লকের একাধিক গ্রাম এখনো বিদ্যুৎ বিহীন রয়েছে।এদিন সকালের গ্রামের মানুষজন উপপ্রধানের বিদ্যুৎতের নতুন খুটিতে দাবিতে দরদার হয় স্থানীয় বাসিন্দারা। তারা উপপ্রধানকে জানায় বিদ্যুৎতের খুটি দিতে হবে। তখন উপপ্রধান জানায় বিদ্যুৎ দপ্তরে অফিসার বুঝবেন। আমাদের কিছুই করার নেই। তারপরে আমচায় উপপ্রধান তুষার পাএকে মারধর শুরু করেন তৃনমুলের অঞ্চল সভাপতি সময় ভূঞ্জ্যা বলে অভিযোগ। এই ঘটনার জানাজানি হওয়ার ব্যাপক উওেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারপরে জখম তৃণমূল-এর উপপ্রধানকে উদ্ধার করে কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালে ভর্তি করেন। এখন তৃণমুলের উপপ্রধান সঙ্কটজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন তৃনমুলের উপপ্রধান৷

তুষার পাএের অনুগামীরা সমর ভূঞ্জ্যা বাড়ির সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। শুধু তাইনয় তৃণমুলের অঞ্চল সভাপতি সমর ভূঞ্জ্যা বাড়িতে হামলার চালায় হয় বলে অভিযোগ। উওেজিত অবস্থায় এক গোষ্ঠীর তৃণমূলের কর্মী সর্মথকরা কাঁথি রসুলপুর রাজ্য সড়কের মকুন্দপুরে বাজারে কাছে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। ঘটনার খবর পেয়ে হাজির হয় কাঁথি থানার পুলিশ। তৃনমুল কর্মী সর্মথকদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলে দেয়।

কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বসন্তিয়া অঞ্চলের তৃণমূল উপপ্রধান তুষার পাএ হাসপাতালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় বলেন প্রতিনিয়ত গ্রাম পঞ্চায়েতের অফিসের এসেই প্রধান সহ অন্য অন্য কর্মীদের সঙ্গে খারাপ আচরন করতো। এলাকায় গুণ্ডা বাহিনী নিয়ে অফিসের দাদাগিরি করতো। এদিন অফিস চলাকালীন আচমায় মারধর শুরু তৃণমুলের অঞ্চল সভাপতি সমর ভূঞ্জ্যা। যদিও অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে সমর ভূঞ্জ্যা দাবি পঞ্চায়েতের কোন মারধরের ঘটনা ঘটেনি। তিনি কোন ভাবেই মারধরের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত নয়। এটা পুরোপুরি চক্রান্ত। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন বাড়ির সামনে বিক্ষোভের নামে বাড়ি ভাঙ্গচুর চালানো হয়।

কাঁথি দেশপ্রান ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তরুণ জানা বলেন প্রায় পঞ্চায়েত অফিসে এসে তৃণমূলে অঞ্চল সভাপতি সমর ভূঞ্জ্যা দাদাগিরি করতো। এদিন সকালের আচমায় অঞ্চলের উপপ্রধানকে মারধর শুরু করেন। তারপরে অঞ্চল থেকে পালিয়ে যায়। তরুনবাবু আরও বলেন বসন্তিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান -উপপ্রধান সহ ১৮ জন গ্রাম সদস্য বিডিও কাছে পদত্যাগ পিএ জমা দিয়েছে। বিষয়টি তৃনমুল জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী কাছে বিষয়টি জানাবেন। যদিও কাঁথি দেশপ্রান ব্লকের বিডিও কোন প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

Related Articles

Back to top button
Close