fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পর্যবেক্ষক পদ তুলে শুভেন্দুর ক্ষমতা খর্ব! একাসনে ঋতব্রত-ছত্রধর, অনুগামিরা মানতে নারাজ

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: সম্প্রতি তৃণমূলের সাংগঠনিক বৈঠকে তুলে দেওয়া হল পর্যবেক্ষক পদটি। আর তারপর থেকেই রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন শুরু তৃণমূলের ডাকসাইটে নেতা ও রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ক্ষমতা খর্ব করতেই এই নীতি অবলম্বন করা হল। কারণ এই মুহূর্তে দলের হয়ে একাধিক পর্যবেক্ষক পদে যেসব নেতারা ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম শুভেন্দু অধিকারী।
শুভেন্দু অধিকারী পর্যবেক্ষক হিসেবে মুর্শিদাবাদ, উত্তরদিনাজপুর, মালদা জেলার দয়িত্বে আছেন। এদিকে দলের অন্দরে খবর শুভেন্দু নিজেই নিজের দল করতে পারেন। এমন অবস্থায় দল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দুকে সরাসরি ক্ষমতাচ্যুত না করে ক্ষমতা খর্ব করলেন। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। একই সঙ্গে দলের প্রথম সারিতে জায়গা করে দেওয়া হয় এক সময় বিরোধী আসনে থাকা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় ও ছত্রধর মাহাতোর মত বেশকিছু নেতৃত্ব। যা মোটেই পছন্দ নয় শুভেন্দু অনুগামীদের। পাশাপাশি কেতুগ্রাম আউসগ্রাম ও মঙ্গলকোট বিধানসভার দায়িত্ব থেকে অনুব্রত মণ্ডল কে সরিয়ে দেওয়া তেও দলের মধ্যেই শুরু হয়েছে বিরোধ।
একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার মসনদে ফিরে আসতে মরিয়া ঘাসফুল শিবির। একুশে জুলাই এর শহীদ মঞ্চ থেকে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে সে কথাই বলেছিলেন। শুধু মুখের কথা বলেছিলেন তা নয় ব্যাপক সাংগঠনিক রদবদল করে তা প্রমাণও করেছেন। সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে গিয়ে রাজ্যজুড়ে রদবদল করা হয়েছে। কিন্তু এবার সেই রদ বদলকে কেন্দ্র করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে দলের অন্দরে। চরম অসন্তোষ শুরু হয়েছে তৃণমূলের নতুন কমিটিতে ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, ছত্রধর মাহাতো, ও শুভেন্দু অধিকারীকে একসাথে নিয়ে আসা হয়েছে দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে। আর তাতেই ক্ষেপে উঠেছে মেদিনীপুরে শুভেন্দু অধিকারী অনুগামীরা। এতদিন পর্যন্ত শুভেন্দু অধিকারী পর্যবেক্ষক হিসেবে মুর্শিদাবাদ উত্তরদিনাজপুর মালদাতে ব্যাপকভাবে কাজ করেছেন।
এমনকি অধির গড় মুর্শিদাবাদের থেকেও দুটি বিধানসভা আসন তৃণমূলের ঘরে এনে দিয়েছিলেন। সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারী এবং তার পরিবার আশা করেছিলেন এবার হয়তো শুভেন্দু অধিকারী রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব পেতে পারেন। কিন্তু সেই অনুমানের উপর জল ঢেলে দিয়েছেন ইতিমধ্যেই তৃণমূল নেত্রী। শুধুমাত্র একা শুভেন্দু অধিকারী নয় এদিকে যেমন আছেন কলকাতা প্রাক্তন মেয়র ফিরহাদ হাকিম এর জামাই অন্যদিকে অরূপ বিশ্বাস এর ভাই সরুপ বিশ্বাস। শুধু তাই নয় অর্পিতা ঘোষকে ও সরানো হয়েছে।
সূত্রের খবর, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী দূরত্ব বেড়েছে বাস ভাড়া বাড়ানোকে কেন্দ্র করে। শোনা যাচ্ছে শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূলের আগামী দিনে নতুন দল তৈরি করতে পারেন। সে কারণেই নেত্রীর এমন সিদ্ধান্ত বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশের। তবে রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে পরিবহনমন্ত্রী দূরত্ব আগামী দিনের জন্য বিপদ ডেকে আনতে পারে। তৃণমূল গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বন্ধ করতে উদ্যোগী, সেখানে এই ধরণের ঘটনা অস্বস্তিতে ফেলতে পারে দলকে।
 অন্যদিকে কেতুগ্রাম, আউসগ্রাম ও মঙ্গলকোট বিধানসভার দায়িত্ব থেকে প্রিয় কেষ্ট দাকে সরানো বিক্ষোভে সামিল হয় তৃণমূলের কর্মীরা।

Related Articles

Back to top button
Close