fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা ও আমফান নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে রিভিউ মিটিং রাজ্যের বনমন্ত্রীর, বিরোধী দলের জনপ্রতিনিধিদের না ডাকার অভিযোগ

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: একদিকে করোনা মহামারীর হানা, অন্যদিকে সুপার সাইক্লোন আমফানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি।এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নির্দেশে উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের সঙ্গে রিভিউ মিটিং করলেন রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায়। বুধবার রায়গঞ্জের কর্নজোড়ায় অবস্থিত জেলা প্রশাসনিক ভবনের বিবেকানন্দ সভাগৃহে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে করোনা সংক্রমন মোকাবিলা ও আমফানের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। যদিও এদিনের বৈঠকে বিরোধী দলগুলির কোনো জনপ্রতিনিকে আমন্ত্রন জানানো হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

উল্লেখ্য মঙ্গলবার মালদায় প্রশাসনিক বৈঠক সেরে বুধবার উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জে আসেন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায়। এদিন জেলা প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন তিনি। রাজীব বন্দোপাধ্যায় বলেন, “আগে উত্তর দিনাজপুর জেলায় করোনা পজিটিভ রোগী না থাকলেও বর্তমানে অনেকটাই বেড়েছে। কীভাবে কোয়ারান্টাইন সেন্টারে কাজ হবে, দ্রুত টেস্ট হবে তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। গোড়া থেকেই জেলা প্রশাসন রাজ্য সরকারের সঙ্গে সমন্বয় রেখে মানুষকে সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে।”

আমফান প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে রাজীব বাবু বলেন,” সুপার সাইক্লোনে দক্ষিন বঙ্গ ও উত্তর বঙ্গের কয়েকটি জেলায় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী একাধিকবার দুর্গত এলাকা পরিদর্শন করে গোটা বিষয় তদারকি করছেন। এই জেলাতেও কমবেশী ক্ষতি হয়েছে। জেলা প্রশাসন প্রাথমিক ক্ষতির হিসাব করছে। শেষ হলে তা নবান্নে পাঠিয়ে দেবে।”

যদিও এদিনের বৈঠক নিয়ে দলবাজীর অভিযোগে সরব হয়েছেন বিরোধী দলগুলি। জেলা বিজেপি সভাপতি বিশ্বজিত লাহিড়ী বলেন,” আজকের বৈঠক শুধুমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্যরাই ছিল। বিরোধী দলের কাউকে আমন্ত্রন জানানো হয়নি। রাজনীতি করতে গিয়ে আমাদের ত্রাণ বিলিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। রায়গঞ্জের সাংসদকে বেরোতে দেওয়া হচ্ছে না। অথচ রেশনের চাল চুরি করে ত্রাণ দিচ্ছে তৃণমূল। ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত দের জন্য কোনও পরিকল্পনা নেই সরকারের।”

Related Articles

Back to top button
Close