fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পার্টি অফিস উদ্বোধন নিয়ে ধুন্ধুমার ‘তৃণ-পদ্মফুলের’, চাঞ্চল্য দিনহাটায়

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী দিনহাটায় সাংসদ নিশীথ প্রামানিকের  কার্যালয় বুধবার সন্ধ্যায় উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনের পড়েই সেই অফিসের তালা ঝোলালো তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। এদিন সন্ধ্যায় বিধায়ক উদয়ন গুহ উপস্থিতিতে তৃনমূলের কর্মী-সমর্থকরা তালা ঝুলিয়ে দেওয়া ছাড়াও বাড়ির সামনে টিএমসি লিখে দেয়। এদিনের এই ঘটনাকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে দিনহাটায়।

জানা গিয়েছে, এদিন সাংসদ নিশীথ প্রামানিক পূর্ব ঘোষিত ঘোষণা অনুযায়ী শহরের এক নম্বর ওয়ার্ডে সাংসদ কার্যালয় উদ্বোধন করেন।উদ্বোধন করে ফিরে যাওয়ার সময় তার গাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। সেই সময় নিশীথ প্রামাণিকের নিরাপত্তারক্ষীরা গাড়ি থেকে নেমে জোরপূর্বক তাদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। আহত হয় তৃণমূলের স্থানীয় প্রাক্তন কাউন্সিলর জয়দীপ ঘোষ, বড় সাকদাল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান তাপস দাস প্রমুখ। এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

পুরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর প্রাক্তন কাউন্সিলার জয়দীপ ঘোষ বলেন,”পুরসভাকে না জানিয়েই তার নিজের ওয়ার্ডে বিজেপি তার কার্যালয় খোলার চেষ্টা করে। এলাকার এক বাড়িতে এই কার্যালয় খোলার চেষ্টা করা হলেও এনিয়ে পুরসভার কোন অনুমতি নেই। পুরসভা কি অন্ধকারে রেখেই জনবসতি এলাকায় দলীয় কার্যালয় আইন বিরুদ্ধ। এছাড়াও এলাকার বাসিন্দাদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে তিনি কাগজপত্র দেখতে চান। সাংসদ রাতের অন্ধকারে সেখানে এসে সেই অফিস উদ্বোধন করেন। তারা প্রতিবাদ করলে পুলিশের উপস্থিতিতে তাকে এবং দলের প্রধান কে মারধোর করা ছাড়াও টেনে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ সব জানে। পুজোর চারদিন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলে পরে এলাকার মানুষকে সঙ্ঘবদ্ধ করে এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তোলা হবে।”

বিষয়টি নিয়ে সাংসদ নিশীথ প্রামানিক বলেন,” নিরাপত্তারক্ষীদের যা কাজ তাই করেছে। এছাড়াও তিনি সাংসদ কার্যালয় উদ্বোধনের পর ফিরে যাওয়ার সময় পুলিশের উপস্থিতিতেই তৃণমূলের কিছু গুন্ডা বাহিনী যারা ছাত্র খুনের সাথে জড়িত তারা বিক্ষোভ দেখায়।দিনহাটা থানার পুলিশ সম্পূর্ণ দল দাসে পরিণত হয়ে উঠেছে। মানুষ উপযুক্ত জবাব দেবে।”

বিষয়টি নিয়ে দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন,”এদিন সাংসদ যাওয়ার সময় কিছু মানুষ বিক্ষোভ দেখালে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। সেসময় সিআইএসএফ তাদের কয়েকজনকে নিজেরাই সরিয়ে দেয়। পুলিশ ও সিআইএসএফ এর সাথে আন্দোলনকারীদের বচসা হয়েছে।”
বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন,” পুরসভা এলাকায় কোনরকম অনুমতি ছাড়াই বাড়ি ভাড়া দেওয়া কিংবা জনবসতি এলাকায় কোনো রাজনৈতিক দলের দলীয় কার্যালয়ে করার ক্ষেত্রে পুর কর্তৃপক্ষের অনুমতি প্রয়োজন। কোনরকম অনুমতি ছাড়াই বেআইনিভাবে ভাড়া দেওয়ায় বাড়িটি তালা দিয়ে দেওয়া হয়।

Related Articles

Back to top button
Close