fbpx
কলকাতাহেডলাইন

রাজ্যে পরপর দু’দিনের লকডাউন, জারি নাকা চেকিং, কলকাতায় গ্রেফতার ১৯০

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: যতদিন বাড়ছে ততোই আতঙ্ক বাড়াচ্ছে করোনা। তবে, সংক্রমণ রুখতে তত্‍পর রাজ্য সরকার। আর তাই করোনার হাত থেকে রাজ্যবাসীকে রক্ষা করতে প্রতি সপ্তাহে দুদিন করে সম্পূর্ণ লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর তার জেরে বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার রাজ্যজুড়ে সম্পূর্ণ লকডাউন। এবারই প্রথম পরপর দু’দিন লকডাউন রাজ্যে। শুনশান শহর এবং শহরতলির রাস্তাঘাট। কলকাতার গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলিতে মোতায়েন বিশাল পুলিশবাহিনী। চলছে নাকা তল্লাশি।

শহরের উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্রই প্রায় শুনশান। ধর্মতলা, পার্ক স্ট্রিট চত্বরে দেখা মেলেনি কারও। সিঁথির মোড়, উল্টোডাঙায় রয়েছে পুলিশি নজরদারির বন্দোবস্ত। রাসবিহারী, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতেও মোড়ে মোড়ে চলছে পুলিশি তল্লাশি। রাস্তায় কেউ বেরলেই জানতে চাওয়া হচ্ছে কারণ। উপযুক্ত কারণ দেখাতে না পারলে বাড়িও পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। রাস্তা দিয়ে চলা যেকোনও গাড়ির ক্ষেত্রে একই কড়াকড়ি জারি রয়েছে। সর্বত্র গাড়ি থামিয়ে চলছে তল্লাশি। খতিয়ে দেখা হচ্ছে লকডাউনের দিনেও বাইরে বেরনোর কারণ। এছাড়া কেউ মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বেরিয়েছেন কিনা, সেদিকেও খেয়াল রাখছেন রাস্তায় থাকা কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা। কলকাতার পাশাপাশি রাজ্যের অন্যান্য প্রান্তেও লকডাউনের ছবিটা একইরকম। গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজন ছাড়া বিশেষ বাইরে বেরতে কাউকেই দেখা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: দেশের মধ্যে স্বচ্ছ রাজ্য হিসেবে শীর্ষ স্থানে ছত্তিশগড়, শহর হিসেবে ইন্দৌর

রাজ্যজুড়ে চলতি মাসে শেষ লকডাউন হয়েছে ৮ আগস্ট। তারপর বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার সম্পূর্ণ লকডাউন। গত কয়েকদিনের লকডাউনে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার এবং গাড়ি আটক করেছিল পুলিশ। এ দিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত লকডাউনের নিয়ম না মানার জন্য মোট ১৯০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাস্ক না পরার জন্য ১৮৮ জনকে আটক করা হয়েছে। আইন না মানার জন্য ৭ জন গাড়ি চালকের বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এ সপ্তাহে আগামী কাল শুক্রবার লকডাউন থাকছে। কিন্তু আগামী সপ্তাহে শুধু বৃহস্পতিবারই লকডাউন হবে। এ বারই পর পর দু’দিন লকডাউন হচ্ছে। যাতে নাগরিকেরা লকডাউনের বিধি-নিষেধ মেনে চলেন, সে বিষয়ে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে পুলিশ এবং প্রশাসনের তরফে।

Related Articles

Back to top button
Close