fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদায় স্বাধীনতা দিবস পালিত হচ্ছে আজ

মিল্টন পাল, মালদা: ১৫ই আগষ্ট নয় মালদা ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয় ১৮ই আগষ্ট। করোনা আবহে এই বছর মঙ্গলবার মালদা শহরের দুর্গাবাড়ি মোড় ও বাবুপাড়া এলাকায় পতাকা উত্তোলন করা না হলেও শহরের গয়েশপুর নেতাজী সংঘের সকল সদস্যের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় স্বাধীন ভারতে মালদা জেলার অন্তর্ভুক্তি করণ দিবস পালন করা হল।  পতাকা উত্তোলন করলেন নেতাজী সংঘের সভাপতি ও এলাকার বরিষ্ঠ নাগরিক শ্রী কল্যাণ কুমার ভট্টাচার্য এবং সহ সভাপতি শ্রী সমীর কুমার ভট্টাচার্য মহাশয়। করোনা মহামারীর জন্য এইবছর জাঁক-জমকপূর্ণ অনুষ্ঠান না হলেও ঐতিহাসিক দিনটির জন্য ক্লাবের পক্ষ থেকে গয়েশপুর এলাকার কিছু শিশুদের হাতে তরল দুধের প্যাকেট, বিস্কুট ও চকলেট তুলে দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন- আইনজীবী সংগঠনের উদ্যোগে আজ পালিত হল স্বাধীনতা দিবস]

উল্লেখ্য, ১৯৪৭’র ১৫ আগস্ট সারা জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে পালিত হয়েছিল স্বাধীনতা দিবস। কিন্তু দেশভাগের জটিলতায় তিন দিনের জন্য পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) অন্তর্গত ছিল মালদা। এমনকি  ১৪ই আগস্ট এই মালদাতেই সবুজ পতাকা উড়তে দেখেছিলেন জেলার মানুষ। শেষ পর্যন্ত জেলাবাসীর তীব্র আন্দোলন ও চাপে পড়েই ১৮  আগস্ট ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয় মালদা। ওইদিন মালদার কালেক্টরেট বিল্ডিংয়ে ভারতে অন্তর্ভুক্তি উদযাপন হওয়ার পর জাতীয় পতাকা উত্তোলন হয়। জেলার বিশিষ্ট শিক্ষক তুষার কান্তি ঘোষ বলেন, যখন সারা দেশ স্বাধীনতার বিজয় উৎসব পালন করছিল তখন অন্ধকারে ডুবেছিল মালদা। অরন্ধন পালিত হয়েছিল ঘরে ঘরে। হিন্দু, মুসলিম সহ সমস্ত সম্প্রদায়ের মানুষেরা আন্দোলনে সোচ্চার হয়েছিলেন।

নেতাজী সংঘের সহ সভাপতি শ্রী সমীর কুমার ভট্টাচার্য বলেন, ১৫ই আগস্ট আমরা স্বাধীনতা দিবস পালন করি। আর ১৮ আগস্ট আমাদের ভারতভুক্তির দিন। এই দিনটির গুরুত্বই আলাদা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই এদিন পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। পাশাপাশি শিশুদের হাতে চকলেট, বিস্কুট ও দুধের প্যাকেট তুলে দেওয়া হয়। করোনা আবহে কিছুটা হলেও ম্লান হয়েছে এই উৎসব।

 

Related Articles

Back to top button
Close