fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

আজ কৃষকদের ডাকে ভারত বনধ, সমর্থন জানিয়ে শামিল একাধিক রাজনৈতিক দল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: তিন ‘বিতর্কিত’ কৃষি আইনের প্রতিবাদে আজ কৃষকদের ডাকে ভারত বনধ। একাধিক রাজনৈতিক দল এই বনধকে সমর্থন জানিয়েছে। ফলে গোটা দেশেই আজ বনধের প্রভাব পড়তে চলেছে। বনধ বিরোধী হলেও কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ক্রমশই সুর চড়িয়েছেন একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। এই ইস্যুকে সামনে রেখে পদ্মবিভূষণ সম্মান ফিরিয়েছেন অকালি দলের নেতা তথা পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিং বাদল।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের আনা বিতর্কিত কৃষি আইন ঘিরে গত কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভরত অসংখ্য কৃষকরা। ঠান্ডার মধ্যেই তারা তাদের একজোট হয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন। এর পরেই তারা বনধের সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে মনে করা হয়েছিল এই বনধ দিল্লির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। পরে সেই বিক্ষোভের আঁচ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়ে। এই আইন প্রত্যাহারের আজ উত্তপ্ত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। বহু রাজনৈতিকদল তাদের এই বনধকে সমর্থন করে কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছে। তবে কৃষকরা জানিয়ে দিয়েছিলেন তাদের কোনও আপত্তি নেই, তবে কৃষকদের পতাকার তলায় ইচ্ছুক রাজনৈতিকদলগুলি বনধে শামিল হতে পারে।

সেইসঙ্গে কৃষকরা আবেদন রেখেছেন সব জায়গায় যেন শান্তি বজায় রাখা। মানুষের সমস্যা করে কোনও কাজ নয়। বনধ উপলক্ষে কোনও দোকান জোর করে বন্ধ করা যাবে না, সোমবারই একথা স্পষ্ট করে দিয়েছেন কৃষকরা। কৃষক নেতা বলবীর সিং রাজেওয়াল বলেন, ”মঙ্গলবার দুপুর ৩টে পর্যন্ত সম্পূর্ণ ভারত বনধ পালিত হবে। কিন্তু জরুরি পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হবে”।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে, কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্সদের হোটেল খরচ আর বহন‌ করবে না রাজ্য

এদিকে এই বনধের জেরে দিল্লি-হরিয়ানা সীমান্ত পয়েন্টগুলি বন্ধ করা হয়েছে। দিল্লি ট্রাফিক পুলিশ জানিয়েছে, টিক্রি, ঝাড়োদা, ধনসা সীমান্ত বন্ধ রয়েছে। বদুসরাই বর্ডারটি কেবল হালকা মোটর যানবাহনের মতো গাড়ি এবং দু’চাকার গাড়ির জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close