fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বৃষ্টি কমবে উত্তরে, তবে কি এবার ভাসবে দক্ষিণ? কী বলছেন আবওহাওয়াবিদরা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে নাজেহাল গোটা উত্তরবঙ্গ। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হয়ে চলছে। তবে আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, রবিবার থেকে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমবে। সেইসঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়বে তাপমাত্রা। উল্লেখ্য,  শনিবার শিলিগুড়ির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সিকিম আবহাওয়া দফতরেররের আঞ্চলিক অধিকর্তা গোপীনাথ রাহা বলেন, রবিবার থেকে উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ অনেকটাই কমবে। তবে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত চলবে মাঝেমধ্যে। সেইসঙ্গে তাপমাত্রাও ধীরে ধীরে বাড়বে।

 

রাজস্থান থেকে আগরা হয়ে হিমালয়ের পাদদেশ গয়ে মণিপুর পর্যন্ত মৌসুমী অক্ষরেখা সক্রিয় থাকার কারণে প্রচুর জলীয় বাস্প ঢুকছে বঙ্গোপসাগর থেকে। তার জেরে বৃষ্টি ক্রমশ বেড়ে চলেছে। উত্তররের দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে প্রবল বর্ষণ হয়েছে।

শুক্রবার রাত থেকে শিলিগুড়িতে ভারী বৃষ্টি হয়। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শিলিগুড়িতে ১১৭.২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। তুমুল বৃষ্টির জেরে ফের শহরের ৩১ এবং ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের বেশকিছু এলাকায় জল জমে যায়। শহরের মিলনপল্লি, শক্তিগড় প্রভৃতি এলাকায় রাস্তায় সকাল পর্যন্ত জল দাঁড়িয়ে ছিল। এর পাশাপাশি ওই এলাকার বেশ কিছু বাড়িতেও জল ঢুকে যায়। তবে বেলা বাড়তেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়। ভারী বৃষ্টির জেরে জল বেড়েছে উত্তরবঙ্গের তিস্তা, তোর্সা, মহানন্দা, জলঢাকা নদীতে। শনিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে দোমোহানি থেকে বাংলাদেশ পর্যন্ত তিস্তা নদীর অসংরক্ষিত এলাকায় হলুদ সর্তকতা জারি করা হয়েছে। সেইসঙ্গে জলঢাকা নদীতেও ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে মাথাভাঙা পর্যন্ত অসংরক্ষিত এলাকায় দুপুর সাড়ে ১১টায় হলুদ সর্তকতা জারি হয়।

উত্তরের পাশাপাশি কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতেও স্বাভাবিক হারে বর্ষার বৃষ্টি চলবে। তবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি বজায় থাকবে দক্ষিণবঙ্গে। কলকাতায় সর্বচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Related Articles

Back to top button
Close