fbpx
কলকাতাহেডলাইন

যাত্রী দুর্ভোগ কমাতে শীঘ্রই কলকাতার রাস্তায় মিলতে পারে ট্রাম

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: অফিসগুলি কম সংখ্যক কর্মী নিয়ে কাজ চালাচ্ছে। দোকান-বাজারে মাস্ক পরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলছে বেচা-কেনা। তবে অনেক জায়গাতেই স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ উঠছে। এদিকে, সরকারি নির্দেশ মেনে অফিস ও অন্য একাধিক কর্মক্ষেত্র খুলে যাওয়ায় মহানগরীতে ভিড় বাড়ছে। তবে রাস্তায পর্যাপ্ত গাড়ি না থাকায় ঘোরতর সমস্যায় পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। এই পরিস্থিতিতে আমজনতার ভোগান্তি কমাতে সোমবার থেকে রাস্তায় দেখা মিলতে পারে ট্রামের। যদিও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও নির্দেশিকা জারি করেনি পরিবহণ দপ্তর। তবে কানাঘুষো পরিবহণ দফতরের কর্তাদের মধ্যে ট্রাম চালানোর ভাবনার কথা শোনা যাচ্ছে।

পরিবহণ দপ্তরের কর্তাদের কথা থেকে জানা যাচ্ছে, আগামী সোমবার থেকে নির্দিষ্ট রুটে আধঘণ্টা অন্তর মিলবে ট্রাম। রুটগুলি হল- শ্যামবাজার-ধর্মতলা, গড়িয়াহাট-ধর্মতলা, খিদিরপুর-শহিদ মিনার এবং টালিগঞ্জ-বালিগঞ্জ। অন্যান্য পরিবহণের মতো এক্ষেত্রেও করোনা সংক্রমণ রোধে সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে সকলকেই। অবশ্যই যাত্রীদের ব্যবহার করতে হবে ফেস শিল্ড কিংবা মাস্ক। তাছাড়া কন্ডাক্টরের কাছে থার্মাল গান রাখার ভাবনাচিন্তাও চলছে। তাই সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে আগামী সোমবার থেকে ট্রাম পরিষেবা চালু হলে সকলেরই যে সুবিধা হবে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। পরিবহণ দপ্তরের কর্তাদের দাবি, এখনও পর্যন্ত সরকারের তরফে কোনও নির্দেশিকা জারি হয়নি। তবে খুব সম্ভবত সোমবার থেকে চলবে ট্রাম। ট্রায়াল রানও হয়ে গিয়েছে।এর আগেই ঠিক হয়েছিল ২১ মে থেকে কলকাতার রাস্তায় চলবে ট্রাম।

আরও পড়ুন: করোনা মুক্ত হল একসঙ্গে ৪০ জন পুলিশকর্মী

জীবিকার টানে কিংবা অন্য কোনও প্রয়োজনে বাড়ি থেকে বেরিয়ে নাকাল হতে হচ্ছে আমজনতাকে। যাত্রীর তুলনায় বাস বা অন্য গাড়ির সংখ্যা কম বলে উঠেছে অভিযোগ। এই পরিস্থিতিতে আমজনতার ভোগান্তি কমাতে শীঘ্রই কলকাতার রাস্তায় দেখা যেতে পারে ট্রাম। যদিও এব্যাপারে রাজ্য সরকারের তরফে স্পষ্ট কোনও নির্দেশিকা দেওয়া হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close