fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল ও বিজেপি সংঘর্ষ, আহত ৪ বিজেপি কর্মী, রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ

মিলন পণ্ডা, পটাশপুর (পূর্ব মেদিনীপুর):  পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদান করার হিড়িক পড়েছে। ঠিক তেমনি দুই রাজনৈতিক দলের সংঘর্ষে একের পর এক ঘটনার বেড়ে চলছে। পটাশপুর সাঁয়া বেলদা এলাকায় তৃণমূল ও বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল।সংঘর্ষে চারজন বিজেপি কর্মী গুরুতর জখম হলেন। তাদেরকে উদ্ধার করে পটাশপুর ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। ঘটনার পরই বিজেপি কর্মীরা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। অবস্থায় অবনতি হলে বিজেপি নেতা পীযূষ মাইতি ও বলাই চরণ সীকে এগরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনার পর গোটা এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

বিজেপির অভিযোগ, দিনের পর দিন পটাশপুর সাঁয়া বেলদা এলাকায় একের পর এক বিজেপি কর্মীর উপর হামলার অভিযোগ উঠছে তৃণমুল আশ্রিত দুষ্কৃতীকারী যুবকদের বিরুদ্ধে।

সোমবার বিকেলে বিজেপি নেতা যুবনেতা পীযূষ মাইতি ও বলাই চরণ সী সহ বেশ কয়েকজন আক্রান্ত বিজেপি কর্মীর বাড়িতে দেখা করতে যান। তখনই ৩০ জন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীকারী  বিজেপি নেতার পথ আটকায়। তাদের মধ্যে কয়েকজন তৃণমূল নেতা ছিল বলে বিজেপির অভিযোগ। অন্যান্য বিজেপি কর্মীরা ছুটে এলে সেখান থেকে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতিকারী যুবকরা। রক্তাক্ত জখম চারজন বিজেপি কর্মীকে উদ্ধার করে পটাশপুর ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। দুইজনের অবস্থায় অবনতি হলে এগরা হাসপাতালে স্থান্তরিত করা হয়।

এই ঘটনার পর বিজেপির পক্ষ থেকে পটাশপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে বিজেপি কর্মীরা এগরা বাজকুল রাস্তার লক্ষ্মীপুর বাজার এলাকায় অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান।পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতারে আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় বিজেপি কর্মীরা।

কাঁথি সাংগঠনিক বিজেপি সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, এই সরকা্রের সঙ্গে কোনও সাধারন মানুষ নেই। তাদের সঙ্গে শুধুমাএ রয়েছে চরিত্রহীন মাতাল ও হার্মাদরা। কিছু অসামাজিক ব্যক্তি এই প্রশাসনে এসেছে। তাদের সঙ্গে পরিবারের সদস্যরা ঠিক মতো থাকতে পারে না। তিনি আরও বলেন প্রশাসনে এসেছে নিজের স্বার্থ ও লুট করার জন্যই। মানুষ এর যোগ্য জবাব দেবে।

পটাশপুর এক ব্লকের তৃণমূল নেতা তাপস মাঝি এই সমন্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এরকম অস্থির পরিস্থিতির মাঝেও বিজেপি এলাকায় গিয়ে গন্ডগোল পাকানোর চেষ্টা করছে। রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার মানুষ রুখে দাঁড়ায়। তাদের পর আটকে পুলিশকে খবর দেন। তাপসবাবু আরও বলেন, করোনা ভাইরাস ও আমফান ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের ত্রাণ ও সহযোগিতা করতে ব্যাস্ত। এই ঘটনার সঙ্গে আমাদের দলের কোন কর্মী যুক্ত নয়। বিজেপি এরকম করেই প্রচারে আসার চেষ্টা করছে। পটাশপুর থানার ওসি চন্দ্রকান্ত শ্যাসমল বলেন একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close