fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ত্রাণ দিয়ে ফেরার পথে বিজেপি কর্মীদের ওপর তৃণমূলের হামলা! আহত তিন

মিলন পণ্ডা, খেজুরি (পূর্ব মেদিনীপুর): একদিকে করোনা ভাইরাস ও অন্যদিকে আমফান ঝড়ের কারণে পূর্ব মেদিনীপুরের মানুষ বিপর্যস্ত। মূলত দুটি কারণে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি বাসিন্দারা প্রচুর পরিমাণে ক্ষতি সম্মুখীন হয়েছে। খেজুরি একাধিক বাসিন্দারা কর্মহীন ও গৃহহীন হয়েছে পড়েছে। মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলেন এলাকায় বিজেপি নেতৃত্বরা।

এলাকার সাধারণ মানুষের বাড়িতে ত্রাণ দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হলেন তিন বিজেপি কর্মী। আক্রান্ত তিন বিজেপি কর্মীকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। এরই প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।এই ঘটনার আবার খেজুরিতে নতুন করে রাজনৈতিক  উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহার ভার্চুয়াল জনসভার পর খেজুরির বীরবন্দের কাঁকুরিয়া এলাকায় ত্রাণ বিলি করতে যায় এলাকার কয়েকজন বিজেপি কর্মী সমর্থক। ত্রান বিলি করে বাড়ি ফেরার পথে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। হামলার ফলে বিশ্বজিৎ হাজরা, রবীন মান্না সহ বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী গুরুত্বর জখম হন। চিৎকার শুনে স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে এলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায় বলে বিজেপি অভিযোগ। রক্তাক্ত জখম অবস্থায় দুইজনকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি স্বাস্থকেন্দ্রের ভর্তি করেন। এই ঘটনার জানাজানি হওয়ার পরই বিজেপি কর্মী সর্মথকরা উওেজিত হয়ে পড়েন।

বুধবার সকালে বিজেপি কর্মীরা সর্মথকরা খেজুরি বাঁশগড়া বাজারে সামাজিক দূরত্ব বোঝাই রেখেই রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। এরপর তারা একটি পথসভা করেন। প্রায় ৩০ মিনিট অবরোধের জেরে রাস্তার উপর একাধিক গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ে। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে খেজুরি থানার পুলিশ। অভিযুক্তদের গ্রেফতার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় বিজেপি কর্মী সর্মথকরা। বক্তব্য রাখেন জেলা সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার দোলই, মন্ডল সভাপতি সুমন দাস, সুদর্শন দাস সহ বিজেপি নেতৃত্বরা।

কাঁথি সংগঠনিক বিজেপি জেলা সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার দোলুই বলেন, মারধরে ঘটনার খেজুরি থানার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই অস্থির পরিস্থিতি মধ্যেও তৃণমুল কংগ্রেস একটি সন্ত্রাস সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছে। তিনজন বিজেপি কর্মীর উপর হামলার প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান হয়। তাপসবাবু আরও বলেন, বিষবটি খেজুরি থানার লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করলেও আগামী দিনে বৃহওর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারী দেন।

খেজুরি থানার সত্যজিৎ চানক বলেন, মঙ্গলবার রাতে দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে একটি মারধরের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তৃণমূল কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক কনিষ্ক পণ্ডা বলেন এই ঘটনার সঙ্গে তাদের দলের কেউ জড়িত নয়। বিজেপি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ঘটনা।পুলিশ তদন্ত করলে প্রকৃত তথ্য প্রকাশ পাবে।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close