fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শহিদ দিবস পালনে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে  

মিল্টন পাল, মালদা: একুশে জুলাই তৃণমূলের শহিদ দিবসে ১০০ মিটার ব্যবধানের মধ্যেই এলাকার দুই প্রভাবশালী নেতা-নেত্রীর কর্মসূচিকে ঘিরে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল আরও একবার উস্কে দিয়েছে। কালিয়াচক ২ ব্লকের মোথাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে মঙ্গলবার তৃণমূলের শহিদ দিবস পৃথক ভাবে পালন করেছেন দলের স্থানীয় বিধায়ক সাবিনা ইয়াসমিন এবং কালিয়াচক ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাস। যদিও এই বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক চর্চা শুরু হলেও এলাকার ওই দুই নেতা-নেত্রীর অবশ্য দাবি , এটা বুথ ভিত্তিক শহিদ দিবস পালন হয়েছে। গোষ্ঠী কোন্দল প্রসঙ্গে যে কথা বলা হচ্ছে , তা ভিত্তিহীন। দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন সবাইকে শহীদ দিবস পালন করার জন্য। লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে বাড়িতে বসেও কেউ শহীদ দিবস পালন করতেই পারেন। সবটাই বিরোধীদের অপপ্রচার।

এদিন দুপুরে মোথাবাড়ি স্ট্যান্ডের কাছে তৃণমূল পরিচালিত কালিয়াচক ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাসের নেতৃত্বে শহীদ দিবস কর্মসূচি পালন হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট ব্লকের দলীয় সভাপতি তথা জেলা পরিষদের সদস্য আসাদুল আহমেদ, অপর আরেক জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ দ্বিজেন্দ্রনাথ মন্ডল সহ অন্যান্যরা। অন্যদিকে মোথাবাড়ি স্ট্যান্ড থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে ঘটা করে শহীদ দিবস পালন করেন স্থানীয় তৃণমূলের বিধায়ক সাবিনা ইয়াসমিন। দুটি জায়গায় একই ভাবে দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং জায়েন্ট স্ক্রিনের মাধ্যমে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির জনসভার বক্তব্য শোনানোর ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু বুধ ভিত্তিকের কথা বলা হলেও একই জায়গার সামান্য দূরত্বের মধ্যেই আলাদাভাবে দুটি কর্মসূচি পালন করা নিয়ে দলীয় কোন্দল আর একবার উস্কে দিয়েছে।

যদিও এ প্রসঙ্গে কালিয়াচক ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাস জানিয়েছেন, দলের জেলা নেতৃত্ব এবং ব্লক সভাপতি উপস্থিতিতেই আমরা এই এলাকায় ৪৭ টি জায়গায় জায়েন্ট স্ক্রীন লাগিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির বক্তব্য শোনার ব্যবস্থা করেছি। পাশাপাশি একুশে জুলাই শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। এখন কে কোথায় কিভাবে এই কর্মসূচি পালন করেছে তা বলতে পারব না। তবে এক্ষেত্রে দলের মধ্যে কোন গোষ্ঠী কোন্দল নেই। জেলা ও রাজ্য নেতৃত্বে সিদ্ধান্ত মেনে এদিনের শহীদ দিবস কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

এদিকে মোথাবাড়ি তৃণমূল দলের বিধায়ক সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, চৌরঙ্গীমোড় এলাকায় শহীদ দিবস পালন করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর ভার্চুয়াল জনসভায় শোনার জন্য বিভিন্ন এলাকায় জায়েন্ট স্ক্রিনের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। দলের শাখা সংগঠনের নেতাকর্মীরা নিজেদের মতো করেই বিভিন্ন বুথে শহীদ দিবস পালন করেছে। যা সবাইকে করতে বলা হয়েছে। ঘরে বসেও শহীদ দিবস পালন করতে পারেন দলের যে কেউ। এখানে গোষ্ঠী কোন্দলের কোন বিষয় নেই।  এটা বিরোধীদের অপপ্রচার। তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যসভার সংসদ সদস্য মৌসুম নূর জানিয়েছেন, শহীদ দিবস উপলক্ষে জায়েন্ট স্কিনের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ভার্চুয়াল জনসভা সরাসরি সম্প্রচারিত হয়েছে। বিভিন্ন বুথে এলাকাতেও দলীয় নেতাকর্মীরা এই কর্মসূচি পালন করেছেন। যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে, তা সঠিক নয় । বুথ ভিত্তিক ভাবেই দলের নেতাকর্মীরা একুশে জুলাই শহীদ দিবস কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে পালন করেছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close