fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপির যোগদান অনুষ্ঠানে যেতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

মিল্টন পাল, মালদা: বিজেপির যোগদান অনুষ্ঠানে যেতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগ, তৃণমূলকে বিভ্রান্ত করছে বিজেপি। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার চাঁচোল ২নম্বর ব্লকের গৌড়হন্ড গ্রামপঞ্চায়েত এলাকায়।
জানা গিয়েছে, মালদার চাঁচল ২ নং ব্লকের গৌরহন্ড গ্রাম পঞ্চায়েতের আলাদিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় বিজেপি যুব মোর্চার উদ্যোগে এই যোগ দানপর্ব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ১০০জন সংখ্যালঘু সম্প্রদায় যোগদান করবে বিজেপি দলে প্রচারও করা হয় এমন। বিজেপির জেলা নেতৃত্বরাও উপস্থিত হন। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর মঞ্চে ১৫ -২০জন উপস্থিত হয়।বিজেপির অভিযোগ মারধর এবং মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে আসতে দেওয়া হয়নি বিজেপিতে যোগদানের আগ্রহী সদস্যদের।

নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে রাজনৈতিক পারদ ততটাই চড়ছে। এই বাংলা থেকে শাসকদল তৃণমূলকে উৎখাত করতে কোমর বেঁধে রাজনৈতিক ময়দানে নেমে পড়েছে বিজেপি। এদিন একুশের নির্বাচনকে সামনে রেখে মূলত চলছে এই যোগদান পূর্ব। এই যোগদান পর্ব ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের চাঁদপুর এলাকার প্রায় শতাধিকের উপর সংখ্যালঘু সম্প্রদায় পরিবারের সদস্যরা যোগদান করার কথা। কিন্তু অভিযোগ সেখানে নাকি তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনীরা যোগদানকারীদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেয় যে বিজেপিতে যদি যোগদান করে তাহলে তাদেরকে গ্রামের ঢুকতে দিবে না। আজ সেই যোগদান অনুষ্ঠানে মাত্র কুড়ি সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যরা বিজেপিতে যোগদান করেন। সেখানে নবাগতদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মালদা জেলা বিজেপির সম্পাদক দীপঙ্কর রাম।

বিজেপিতে যোগ দেওয়া নাসিরুদ্দিন শেখ বলেন, আমার বিজেপির কাজ খুব ভালো লাগে।তারা মানুষের পাশে থাকে, মানুষের জন্য কাজ করে।আগামী দিনে উন্নয়ন করবে বিজেপি।তাই বিজেপিতে যোগ দিয়েছি।

বিজেপির জেলা সম্পাদক দীপঙ্কর রাম অভিযোগ করে বলেন, ‘সংখ্যালঘুদের ভুল বুঝিয়ে আর বিজেপির থেকে দূরে রাখা যাচ্ছে না।তাই তৃণমূল মারধর এবং মিথ্যে মামলার ভয় দেখিয়ে তাদের যোগদান আটকানোর চেষ্টা করছে।এই ভাবে বিজেপিকে আটকানো যাবে না’।

আরও পড়ুন: পিকে-র বিরুদ্ধে অসন্তোষের কথা লিখে সরকারি কমিটির চেয়ারম্যান পদে মদন মিত্র

যদিও যোগদানে বাধা দেওয়ার এই অভিযোগকে অস্বীকার করে তৃণমূল।এই প্রসঙ্গে মালদা জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ রফিকুল হোসেন কটাক্ষ করে বলেন, ‘বিজেপির যোগদান পর্বে লোক হয়নি তাই এইসব মিথ্যে অভিযোগ করছে।তারাও বুঝে গেছে মমতা ব্যানার্জির জয় নিশ্চিত তাই হতাশাগ্রস্ত হয়ে এই সব গুজব ছড়াচ্ছে।বিজেপি শুধুমাত্র মানুষকে বিভ্রান্ত করার কাজ করছে’।

Related Articles

Back to top button
Close