fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে, অভিযোগ রথীন্দ্র বোসের

 কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: রাজু বিস্ট কোথায় তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তৃণমূলের এই প্রশ্নের জবাব দিয়ে প্রয়াত কোভিড যোদ্ধা বিষ্ণু চ্যাটার্জীর পরিবারের পাশে সাংসদের পাশে থাকার উদাহরণ তুলে ধরেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্বোধন রথীন্দ্র বোস।  মঙ্গলবার শিলিগুড়ি মহকুমার মাটিগাড়া ব্লকের শুশ্রুতনগরের বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত চিকিৎসক বিষ্ণু চ্যাটার্জীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করে পরিবারটির পাশে থাকার বার্তা দিলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রথীন্দ্র বোস ৷
দার্জিলিং জেলায় তিনিই প্রথম কোভিড যোদ্ধা যিনি করোনা আবহে সামনের সারিতে দাড়িয়ে করোনা আক্রান্তদের পরিসেবা দিতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন বলে বিজেপির দাবী। মঙ্গলবার মাটিগাড়ায় বিষ্ণু বাবুর পরিবারের সাথে দেখা করেন রথীন্দ্র বোস সহ  শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলার সাধারণ সম্পাদক আনন্দময় বর্মন, মাটিগাড়া মন্ডল সভাপতি নিতাই রায় সহ মন্ডলের অন্যান্য কার্যকর্তারা ।
বিজেপির দাবী, বিষ্ণুবাবু মারা যাবার কয়েকমাসের মধ্যেই দার্জিলিং জেলার সাংসদ রাজু বিস্টের প্রচেস্টায় প্রধানমন্ত্রী গরীব কল্যাণ যোজনার (কোভিড-১৯) মাধ্যমে প্রয়াত স্বাস্থ্যকর্মীর স্ত্রী দিপ্তী চ্যাটার্জিকে পঞ্চাশ লক্ষ টাকা প্রদান করা হয়। পাশাপাশি রাজু বিস্ট ব্যক্তিগতভাবে  পরিবারটিকে আরও কিছু আর্থিক সহায়তা করেছে। তাদের অভিযোগ রাজ্য সরকার থেকে পরিবারটির পাশে দাড়িয়ে এখনও কোনোরকম সহায়তা করা হয় নি। এদিকে গোটা রাজ্যের পাশাপাশি শিলিগুড়িতেও কেন্দ্র সরকারের রাজ্যের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে ৮ তারিখ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত নানা আন্দোলনে নেমেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দার্জিলিং জেলায় কেন্দ্র সরকারের বঞ্চনার অভিযোগের পাশাপশি দার্জিলিং জেলার সাংসদ রাজু বিস্টকে খুঁজেতেও কর্মসূচি  চালানো হবে বলে তৃণমূল জেলা সভাপতি রঞ্জন সরকার সোমবার সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান। সেই সঙ্গে তিনি প্রশ্ন তোলেন রাজু বিস্ত কোথায়? তাকে খুজে পাওয়া যাচ্ছে না।
এছাড়া তৃণমূলের বরাবরের অভিযোগ সাংসদ জেলায় থাকেন না। তৃণমূলের সেই প্রশ্নের জবাবে রথিন্দ্র বোস এদিন তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, সাংসদ জেলাতে না থেকেও এই পরিবারটিকে ব্যাক্তিগত উদ্যোগে আর্থিক সহায়তার পাশাপাশি গরীব কল্যান যোজনার ৫০ লক্ষ টাকা পেতে সহায়তা করেছেন। উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে কোভিড চিকিৎসার পরিকাঠামো উন্নয়নে নানারকম সহায়তা করেছে। জেলার কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পিপিই কীট সহ নানারকম সামগ্রী হাসপাতালগুলিকে প্রদান করেছে। তার অভিযোগ সাংসদ না থেকেও এসব কাজ করছেন অথচ রাজ্যের মন্ত্রী গৌতম দেব জেলাতে থেকেও রাজনীতি করা ছাড়া আর কিছু করেন না। তিনি জানান গৌতম দেবের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে এক ব্যাক্তি করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাবার পর তার পরিবারকে না জানিয়ে সৎকার করা হয়। তার প্রশ্ন সেই পরিবরটির জন্য গৌতম দেব পাড়াতে থেকেও কি করেছেন? তার আরও অভিযোগ করোনা যোদ্ধা চিকিৎসকের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা দেবে বলে রাজ্য সরকার থেকে ঘোষনা করা হলেও এখনও পরিবারটি সেই আর্থিক সহায়তা পায় নি। তাই তিনি দাবী করেন সাংসদ রাজু বিস্ট কোথায় এই প্রশ্ন তুলে তৃণমূল মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।

Related Articles

Back to top button
Close