fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

‘জাতীয় পতাকা’র আদলে তৈরি কেক কেটে জন্মদিন পালন তৃণমূল নেত্রীর, দলের অন্দরে ক্ষোভ, সোচ্চার বিজেপি

মিল্টন পাল,মালদা: জাতীয় পতাকার কেক তৈরি করে জন্মদিন পালন তৃণমূল নেত্রীর। ঘটনাটি ঘটেছে মালদায়। জাতীয় পতাকার অবমাননা করার অভিযোগ তুলে তৃণমূলের একাংশ নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ তুলেছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। রীতিমতো তেরঙ্গার তৈরি করে চাকু দিয়ে সেই কেক কেটে জন্মদিনের আনন্দ পালন করলেন মালদার তৃণমূল নেত্রী শেহনাজ কাদেরী উনি আবার প্রয়াত প্রাক্তন রেলমন্ত্রী গনিখান চৌধুরীর ভাগ্নি। যদিও তিনি প্রথম থেকে তৃণমূলে যোগদান করে রাজনীতি করছেন মালদায়। তবে জাতীয় পতাকা কেটে এরকম বিনোদন করা নিয়ে রীতিমতো জেলার রাজনৈতিক থেকে শিক্ষক এবং বুদ্ধিজীবী সহ বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

জানা গিয়েছে, রতুয়ায় শেহনাজ কাদেরী নিজের জন্মদিন পালন করেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রতুয়া তৃণমূল নেতা মহম্মদ ইয়াসিন, জয় হিন্দ বাহিনীর জেলা সভাপতি কৃষ্ণ দাস সহ অন্যান্যরা। এই জন্মদিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত তৃণমূল নেতাকর্মীদের করতালির মাধ্যমে জাতীয় পতাকার তৈরি কেক কাটা হয়, বাহবা নেওয়া হয় উপস্থিত দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে থেকে। এদিকে এই ঘটনার জেরে শেহনাজ কাদরী এই কাজ নিয়ে চরম সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

আরও পড়ুন: করোনার ওষুধ তৈরির দাবি, চিকিৎসকের কাছে ১০ হাজার টাকা জরিমানা শীর্ষ আদালতের

যদিও এপ্রসঙ্গে শেহেনাজ কাদেরী কোনো মন্তব্য করেননি। বিতর্কর আঁচ পেয়ে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর থেকে এড়িয়ে গিয়েছেন।
তৃণমূলের জেলার কার্যকরী সভাপতি তথা ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য বাবলা সরকার বলেন, এই ধরনের ঘটনাকে কোন ভাবেই সমর্থন করা যায় না। দলীয় ভাবেও যদি কেউ জাতীয় পতাকার কেক বানিয়ে কেটে থাকেন তা অন্যায়। কেন জেলার তৃণমূল নেত্রী শেহনাজ কাদেরী তেরাঙ্গা তৈরি করে জন্মদিন পালন করলেন চাকু দিয়ে কেটে লোককে খাওয়ালো তা অবশ্যই দলের তরফ থেকে জানতে চাওয়া হবে।

ঘটনার তীব্র নিন্দা প্রকাশ এবং বিরোধিতা করেছে বিজেপি। জেলা বিজেপি’র সহ-সভাপতি অজয় গাঙ্গুলি বলেন, জাতীয় পতাকার প্রতিকী নিয়ে এই রকমের কুরুচিকর অনুষ্ঠান কখনই মেনে নেওয়া যায় না। এদের সঙ্গে জেলে পুরে দেওয়া উচিত। উপস্থিত যে সকল নেতারা উপস্থিত থেকে বাহবা কুড়োচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি তুলেছেন জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।
তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যসভার সাংসদ মৌসুম নূর বলেন, এসম্পর্কে কিছু জানা নাই বিষয়টি অবশ্যই খোঁজ নিয়ে দেখব।যদি সেই ধরনের কিছু ঘটে তাহলে বিষয়টি দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close