fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আল-কায়দা জঙ্গি গ্রেফতার নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় এবং কল্যাণ মুখোপাধ্যায়ের

ইন্দ্রাণী দাশগুপ্ত, নয়া দিল্লি: পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ থেকে ৬ আল-কায়দা জঙ্গি গ্রেফতার সম্পূর্ণই কেন্দ্রীয় সরকারের এবং এজেন্সিগুলির ব্যর্থতা বলে জানালেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় এবং কল্যাণ মুখোপাধ্যায়। তারা আরও বলেন, সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলিতে কিভাবে জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটছে দেখার কাজ বিএসএফ এবং কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলির। কি করে এত জন জঙ্গি পশ্চিমবঙ্গে এত বিপুল পরিমাণ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জঙ্গি কার্যকলাপ চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল সেটার জন্য সরকারের তরফ থেকে আমরা কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলোর কাছে জবাবদিহি চাইব।

যুগশঙ্খকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে সৌগত রায় জানান, মুর্শিদাবাদ সীমান্তবর্তী এই অঞ্চলগুলিতে প্রতিবেশী দেশগুলো বারে বারে জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটছে। বর্ডার পাহারা দেয় যে বিএসএফ জওয়ানরা, তারা কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন। সারাদেশে জঙ্গি কার্যকলাপের উপর নজরদারি করার সংস্থাগুলি তারাও কেন্দ্রীয় সরকারের, তাহলে এখন প্রশ্ন হল পশ্চিমবঙ্গে আল-কায়দা জঙ্গিরা নেটওয়ার্ক তৈরি করছে বা প্রচুর অস্ত্র মজুদ করছে এই খবর কেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার কাছে আগে থেকেই ছিল না? তারা কেন রাজ্য সরকারকে সতর্ক করেনি আসলে সারাদেশের জঙ্গি কার্যকলাপ বন্ধ করার জন্য z17 নিরাপত্তা ব্যবস্থার দরকার বিজেপি সরকার সেটা তৈরি করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। আমরা দেখি কাশ্মীর থেকে গুজরাট, মহারাষ্ট্র সব জায়গাতেই জঙ্গি কার্যকলাপ শুরু হয়ে গেছে এমনকী রাজধানী দিল্লিতে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকজন জঙ্গি ধরা পড়েছে। এই জঙ্গিরা কি করে বর্ডার পেরিয়ে ভারতের ঢুকছে বা নেটওয়ার্ক তৈরি করছে সেই সম্বন্ধে গোয়েন্দা সংস্থার কাছে কোনও খবর নেই। নেটওয়ার্ক তৈরি হয়ে যাওয়ার পর গোয়েন্দারা তাদের গ্রেফতার করছেন এটা কি ধরনের শাসন ব্যবস্থা চলছে সারা ভারত জুড়ে এখন সেটাই প্রশ্ন!

আরও পড়ুন:আল কায়দা জঙ্গি সন্দেহে মুর্শিদাবাদ-কেরল থেকে ৯ জনকে গ্রেফতার করল NIA

সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় একইভাবে কেন্দ্রীয় সংস্থা এবং কেন্দ্রীয় সরকারকে দোষারোপ করেন। তিনি বলেন, এটা সম্পূর্ণই কেন্দ্রীয় ব্যর্থতা। আল-কায়দার মতো মারাত্মক জঙ্গিগোষ্ঠী ভারতে কিভাবে প্রবেশ করল বা কীভাবে তাদের অস্ত্রশস্ত্র জোগাড় হল সেই সম্বন্ধে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কাছে আগে থেকে কেন কোনও খবর ছিল না? শুধু শুধু পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে দোষ দিয়ে বিজেপি নিজেদের দায় এড়াতে পারে না। কারণ জঙ্গি কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ সম্পন্ন কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা সংস্থার কাজ। মুর্শিদাবাদ কেরল থেকে যে ৯ জঙ্গি গ্রেফতার হলেন, শুনেছি রাজধানীসহ ভারতে বিভিন্ন জায়গায় তারা হামলার ছক কষেছিল। অথচ নিরাপত্তা এজেন্সিগুলোর কাছে কোনও খবর ছিল না। আমার প্রশ্ন হল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা “আই বি”, “সি বি আই” ,”র “এতদিন কি বসে বসে ঘুমোচ্ছিল। আর বিএসএফ-এর নজর এড়িয়ে কি করে এত জঙ্গি অনুপ্রবেশ ভারতে হল সেটা নিয়েও জবাবদিহি করতেই হবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে।

Related Articles

Back to top button
Close