fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

হাথরাস যাওয়ার পথে আটকানো হল তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে, ধাক্কা ডেরেক ও’ব্রায়েনকে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: গতকাল রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর পর আজ হাথরাসে যাওয়ার সময় তৃণমূল প্রতিনিধিদলের পথ আটকাল উত্তরপ্রদেশের পুলিশ। দলে রয়েছেন সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, প্রতিমা মণ্ডল ও মমতা ঠাকুর। দিল্লি থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার পথ পেরিয়ে এসে ওই প্রতিনিধিদল পৌঁছে গিয়েছিল নির্যাতিতার বাড়ির দেড় কিলোমিটার দূরত্বে। কিন্তু এরপরই ওই দলকে আটকে দেয় পুলিশ। কাকলি ঘোষ দস্তদার বলেন, ডেরেক ও ব্রায়েনকে মাটিতে ঠেলে ফেলে দেওয়া হয়েছিল, সম্ভবত তিনিও আহত হয়েছেন। তাঁকে আক্রমণ করা হয়েছে। তারা কীভাবে এটি করতে পারে?”

সাংসদরা জানিয়েছেন, নির্যাতিতার শোকতপ্ত পরিবারের পাশে দাঁড়াতে ও শোক ব্যক্ত করতেই তাঁরা সেখানে যাচ্ছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাঁদের পথ আটকেছে। তৃণমূল সাংসদের হেনস্তা করারও অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এরপর পুলিশের ব্যারিকেডের সামনেই ধরনা দিতে থাকেন সাংসদরা। ডেরেক ও’ব্রায়েন বলছেন, ‘‘আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে হাথরাসে যাচ্ছিলাম ওই পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এবং আমাদের তরফ থেকে সান্ত্বনা জানাতে। সমস্ত প্রোটোকল মেনেই আমরা সেখানে যাচ্ছিলাম। আমরা সশস্ত্রও নই। কেন আমাদের আটকানো হল? এটা কেমন জঙ্গলরাজ চলছে যে, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শোকতপ্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হবে না?’’

এদিনের ঘটনার যে ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে, তাতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে সাংসদদের সঙ্গে পুলিশ ধস্তাধস্তি করছে। ডেরেক ও’ব্রায়েনকে বলতে শোনা যায়, তেমন হলে তিনি এখানেই থাকছেন। কিন্তু যে তিনজন মহিলা প্রতিনিধিদলে রয়েছেন তাঁদের যেতে দেওয়া হোক নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে। কিন্তু পুলিশ কোনও কথাতেই কর্ণপাত করেনি। পুলিশের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এরপর আর এগোনোর কোনও অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। সাংসদরা বারবার পুলিশকে বোঝানোর চেষ্টা করেন। পরে পুলিশের ব্যারিকেডের সামনে ধরনায় বসেন সাংসদরা। তাঁদের স্লোগান দিতেও দেখা যায়।

আরও পড়ুন: তাঁর ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়তেও ছিল নান্দনিকতা

বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের হাথরসের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন রাহুল-প্রিয়াঙ্কা, রণদীপ সুরজেওয়ালা, কে সি বেণুগোপাল, অধীর চৌধুরীরা। কিন্তু গ্রেটার নয়ডার কাছে যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের উপরেই তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে রাস্তায় পড়ে যান রাহুল। পুলিশের বিরুদ্ধে তাঁকে নিগ্রহের অভিযোগ উঠেছে। পরে গ্রেপ্তার করা হয় তাঁদের। বিকেলের দিকে পুলিশ আবার দিল্লিতে ফেরত পাঠিয়ে দেয় তাঁদের।

Related Articles

Back to top button
Close