fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাজনৈতিক চাপান-উতোর, জনসমক্ষে আসতে চলেছেন তৃণমূলের বিদ্রোহী বিধায়ক মিহির গোস্বামী

জেলা প্রতিনিধি, কোচবিহার: সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে খুব শীঘ্র জনসমক্ষে আসতে চলেছেন কোচবিহারের তৃণমূল কংগ্রেসের বিদ্রোহী বিধায়ক মিহির গোস্বামী। মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এমনটাই বার্তা দিলেন কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক মিহির গোস্বামী। মঙ্গলবার মিহিরবাবু ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেছেন, ‘সত্যি কথা বলতে কস্মিনকালেও ভাবি নাই আমার মত অতি নগণ্য এক রাজনীতির মানুষকে ঘিরে এত হৈচৈ হতে পারে। কোনওদিন কল্পনাতেও আসে নাই ফেসবুকে আমার লেখা লাইন উদ্ধৃতি করে বহুল প্রচারিত দৈনিক সংবাদপত্রের পাতায় আমাকে নিয়ে খবর হতে পারে।

গত বাইশ বছর ধরে যে দলটি করতাম সেখানে ক্রমাগত অবহেলা অপমান সহ্য করতে করতে ভুলেই গিয়েছিলাম নিজের অস্তিত্ব এত গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। সংবাদমাধ্যমের অতিমূল্যবান স্পেস বা সময় আমার মত এক ক্ষুদ্র মানুষের জন্য ব্যয় হতে দেখে আমার কেবলই মনে হচ্ছে, বিধাতার এ কী আশ্চর্য খেলা, দুদিন আগেও যে সব সতীর্থ বন্ধুরা আমার উপস্থিতিই সহ্য করতে পারতেন না তারা আজ আমার খোলামেলা প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

তবে হ্যাঁ, মানুষের ভালোবাসা এই অধমের প্রতি সেই একইরকম আছে দেখে আমি আপ্লুত। তাই ভাবি এইসব প্রিয় মানুষগুলির জন্যই আমাকে সুস্থ শরীর ও মনে বেঁচে থাকতে হবে। আমার আপাত অন্তরালে থাকা নিয়ে যে প্রশ্ন উঠেছে তার উত্তরে একটাই কথা বলব, যেহেতু ব্যক্তিগতভাবে কাউকে শত্রু মনে করি না, আজকের পরিস্থিতিতে পুরনো সহকর্মী বা নেতাদের সঙ্গে অহেতুক বাক্য বিনিময় অকারণে তিক্ততার সৃষ্টি করতে পারে। তাই দূরত্বই এসময় সঠিক পথ। সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শীঘ্রই হাজির হব মানুষের দরবারে এই আশা রাখি। ততদিন আড়ালে থেকে উদ্ধার করি নিজের আত্মযর্যাদাকে। এইটুকু অবকাশের সুযোগ আশা করি মানুষ আমাকে দেবে’।

আরও পড়ুন: ‘রাষ্ট্রদ্রোহী, সমাজবিরোধী, দুর্নীতিগ্রস্তরাই এখন তৃণমূলের নেতা’, কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

সম্প্রতি নতুন করে ব্লক ও জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর সেই ঘোষণা ঘিরেই মাথাচাড়া দিয়েছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, বিক্ষোভ। ব্লক ও জেলা কমিটি ঘোষণার পর থেকেই কোচবিহার জেলার বিভিন্ন জায়গায় চলছে বিক্ষোভ। এরপরেই দলের সকল সাংগঠনিক পদ থেকে ইস্তফা ঘোষণা করেন বিধায়ক মিহির গোস্বামী। যার পর থেকে জল্পনা শুরু হয় কোচবিহারে।

Related Articles

Back to top button
Close