fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সোশ্যাল মিডিয়ায় করোনা সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতার বিরুদ্ধে!

জেলা প্রতিনিধি, মালদা: সোশ্যাল মিডিয়ায় করোনা সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে চাঁচলের এক তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতার বিরুদ্ধে। বিষয়টি ভাইরাল হতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে চাঁচোল মহকুমার বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলে। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ওই নেতা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বুধবার বিজেপির পক্ষ থেকে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে।

যদিও জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব সাফ জানিয়েছে, যিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেকে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতা হিসাবে দাবি করে বিভ্রান্তিকর মন্তব্য করেছেন, তিনি সংগঠনের কেউ নন। কাজেই এই ব্যাপারে যারা তৃণমূলের ঘাড়ে দোষারোপ করার চেষ্টা করছে তা ঠিক নয়।

পুলিশে অভিযোগ হওয়া সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, চাঁচল ১ ব্লকের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কার্যকরী সভাপতি বাবু সরকার সোশ্যাল মিডিয়ায় করোনা সম্পর্কিত মহকুমার বাসিন্দাদের নিয়ে বিভ্রান্তিকর একটি মন্তব্য করেছেন। যা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠেছে। বিষয়টি অত্যন্ত আপত্তিকর বলে দাবি করে এদিন বিজেপির পক্ষ থেকে মহকুমা পুলিশ প্রশাসনের কাছে ওই তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতা বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে।

এপ্রসঙ্গে চাঁচোল মহকুমার বিজেপির মহিলা যুব মোর্চার সভাপতি সংঘমিত্রা সাহা বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতা বলেছেন, “চাঁচোলবাসী এবার মৃত্যুর মিছিলে হাঁটবেন তো”। দেড় মাস ধরে যেখানে লকডাউনে আমরা নিজেদের জীবনকে বাঁচানোর জন্য ঘরবন্দি হয়ে রয়েছি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা প্রশাসন প্রচার করছে। সেখানে এই ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় কি করে একজন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতা করতে পারলেন! এটা মানুষের আবেগকে নিয়ে খেলা করা হয়েছে। দেড় মাস লকডাউনের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় চাঁচোলবাসীর উদ্দেশ্যে মৃত্যুর মিছিলে হাঁটার কথা বলে এরকম কটাক্ষ করাটা মোটেই শোভনীয় নয়। তার মানে এখানে ওই তৃণমূল ছাত্র নেতা বোঝাতে চেয়েছেন যে প্রশাসন ও ঠিকমতো কাজ করছে না। তাই আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে পুলিশে নালিশ করেছি।

বলা বাহুল্য, মালদায় করোনা সংক্রামণের সব থেকে বেশি রোগি শনাক্ত হয়েছে চাঁচোল মহকুমার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকায়। মোট ১৯ জনের মধ্যে ১০ জন করোনা পজেটিভ হরিশ্চন্দ্রপুর থেকেই পাওয়া গিয়েছে বলে প্রশাসন সূত্রে খবর। আর তারপরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ওই নেতার এরকম বিভ্রান্তিকর মন্তব্যেই এখন ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

এদিকে বিষয়টি জানার পর বেজায় চটেছেন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু । তিনি বলেন, মৃত্যু মিছিলে হাঁটবে কেন? কেন্দ্র সরকার অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে জনগনকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। মঙ্গলবার দেশবাসীর জন্য ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছে শুধু কি মৃত্যু মিছিলে হাঁটার জন্য।

যদিও এপ্রসঙ্গে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতার সঙ্গে কোনও রকম ভাবে যোগাযোগ করা যায় নি। তৃণমূলের জেলার কার্যকরী সভাপতি বাবলা সরকার বলেন, বাবু সরকার নামে তৃণমূলের কোনও নেতা নেই। লকডাউন নিয়ে ওই ছেলেটি যদি কোনও মন্তব্য করে থাকে দল তার দায়িত্ব নেবে না। মুখ্যমন্ত্রী লকডাউন কঠোরভাবে মেনে চলতে বলছেন। এই অবস্থায় কেউ যদি বিরোধী মন্তব্য করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা পুলিশ সুপার আলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, করোনা সংক্রান্ত কোনও গুজব বা ভুয়ো প্রচার যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় করা হয় তাহলে আইনগতভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close