fbpx
আন্তর্জাতিকআমেরিকাহেডলাইন

নির্বাচনী দৌড়ে ফিরেই উল্লাস ‘করোনামুক্ত’ ট্রাম্পের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত হওয়ার দু’সপ্তাহেরও কম সময়ে ফের নির্বাচনী দৌড়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প । তাঁর রোগমুক্তি নিয়ে কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না বিতর্ক। অভিযোগ, সম্পূর্ণ সেরে ওঠার আগেই হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এহেন সময়ে ফ্লোরিডায় একটি নির্বাচনী প্রচারসভায় উল্লাসিত ট্রাম্প বলেন, তিনি সবাইকে চুমু খেতে চান।

হোয়াইট হাউসও ট্রাম্পের শরীর-স্বাস্থ্য আর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে কোনও খবরই প্রকাশ্যে আনেনি। সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তৃতা দেওয়ার আগে একটানে মাস্ক খুলে ফেলতেও দেখা যায় তাঁকে, যা নিয়েও সমালোচনায় মুখর বিরোধীপক্ষ। সবমিলিয়ে তাই তড়িঘড়ি ট্রাম্পের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে হোয়াইট হাউস। কোভিড সংক্রমণ ধরা পড়ার পর থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের চিকিত্‍সার দায়িত্বে ছিলেন সিন কনলে। সোমবার হোয়াইট হাউসের তরফে বিবৃতি দিয়ে সিন বলেন, ক্রমান্বয়ে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করে দেখা গেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট করোনা-মুক্ত। তাঁর শরীরে এখন সংক্রমণের লেশমাত্র নেই। এরপরেই প্রশ্ন ওঠে, অ্যান্টিজেন টেস্টের থেকে রিয়েল টাইম আরটি-পিসিআর টেস্ট অনেকবেশি নির্ভরযোগ্য। অ্যান্টিজেন টেস্টে ফলস নেগেটিভ রিপোর্ট আসার সম্ভাবনা বেশি। এই প্রসঙ্গে অবশ্য হোয়াইট হাউস মুখ না খুললেও. ডাক্তার সিনের দাবি নানারকম টেস্ট করা হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের। সব ক্ষেত্রেই তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

সোমবার ফ্লোরিডার স্যানফোর্ডের বিমানবন্দরে নামে এয়ারফোর্স ওয়ান। সেখান থেকে মঞ্চে এসে সমর্থকদের উদ্দেশে ভাষণ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অনুগামীদের উল্লাসিত ট্রাম্প বলেন, “আজ থেকে ২২ দিন বাদে এই প্রদেশ জয় করব আমরা। আমাদের দখলে আর চার বছর থাকবে হোয়াইট হাউস। আমার নিজেকে খুব শক্তিশালী মনে হচ্ছে। আমার মনে হচ্ছে দর্শকদের মধ্যে হেঁটে বেড়াই। আমি সবাইকে চুমু খাব। ওই যুবক ও ওই সুন্দরী মহিলাকে আমি চুমু খাব।” শুধু তাই নয়, নিজের বক্তব্যের আগে একটানে নিজের মাস্ক খুলে তা ছুঁড়ে ফেলে দেন ট্রাম্প। তাঁর এহেন ব্যবহারে রীতিমতো করোনা নিয়ে ছেলেখেলা করার অভিযোগ উঠছে।

আরও পড়ুন: অবশেষে মুক্তি, লিবিয়ায় অপহৃত ৭ ভারতীয়কে ছেড়ে দেওয়া হল: বিদেশমন্ত্রক

এদিকে, নির্বাচনী প্রচারে স্বমহিমায় ফিরে বিরোধীদের উপর রীতিমতো জোরদার হামলা শুরু করেছেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ট্রাম্প। বিশেষ করে ন্যান্সি পেলোসির মতো বিরোধীদের খোঁচা দিয়ে ফ্লোরিডার সভায় তাঁর বক্তব্য, “আমি বৃদ্ধ নই। আমি এখনও যুবক। যারা আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে তাদের লজ্জা হওয়া উচিত।” ফ্লোরিডার ‘দক্ষিণপন্থী’ ও ‘উগ্র জাতীয়তাবাদী’ জনগণের মন পেতে এদিনের প্রচারে চিনের কথা তুলে ধরেন ট্রাম্প। তাঁর দাবি, চিনকে এমন শিক্ষা দেওয়া হয়েছে যা এর আগে তারা পায়নি। করোনা মহামারী নিয়ে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী জো বিডেনের বিরুদ্ধেও এদিন তোপ দেগে ট্রাম্প অত্যন্ত প্রত্যয়ের সুরে দাবি করেন, যে চিন নিয়ে বিডেনের মত ভুল ছিল। সময়মতো চিনা ভাইরাসটির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করে লক্ষ লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। সব মিলিয়ে নির্বাচনী প্রচারে ফের জোরদার প্রত্যাবর্তন করলেন ট্রাম্প।

Related Articles

Back to top button
Close