fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিকিৎসা না পেয়ে ধর্নায় করোনা আক্রান্ত দুই ঠিকা কর্মী, কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভ

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: চারদিন আগে লালারসের পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তারপরও তাদেরকে কতৃপক্ষ চিকিৎসা বা কোথাও ভর্তির ব্যবস্থা করেনি। এরই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাত থেকে বার্ণপুরের ইস্কো কারখানার হাসপাতাল চত্বরে ধর্নায় বসে পড়েন করোনা আক্রান্ত দুই রোগি। হিরাপুর থানার বার্ণপুরের নরসিংবাঁধের বাসিন্দা মধ্য বয়স্ক মহিলা ও পুরুষ ওই দুজন বার্ণপুর ইস্কো হাসপাতালেরই ঠিকা সাফাই কর্মী।

[আরও পড়ুন- সরকারি স্কুল থেকে পড়ুয়াদের চাল চুরি, প্রধান শিক্ষকের বদলির দাবি গ্রামবাসীদের]

শুক্রবার সকাল থেকে তাঁরা হাসপাতালের আউটডোরের সামনে ধর্নায় বসেন। হাসপাতালেরই কর্মীরাই করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসতেই  চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এর প্রতিবাদে হাসপাতালে কর্মরত আরও ১২০ জন ঠিকাকর্মী কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেন। হাসপাতালের ডিএমএইচএস ডাঃ সঞ্জয় চক্রবর্তী দুই করোনা আক্রান্তকে আশ্বাস দেন যে, তাদেরকে ভর্তি করানোর ব্যবস্থা করা হবে।

জানা গেছে, এই দুই ঠিকা কর্মীর গত ৩০ জুলাই লালারস পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়েছিলো। ৪ আগষ্ট তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। কিন্তু অভিযোগ, তাঁদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি। তারা রিপোর্ট হাতে নিয়ে হন্যে হয়ে হাসপাতালে ঘুরে বেড়িয়েছেন। কিন্তু কেউ তাদের দিকে ফিরে তাকায়নি। কোনও উপায় না পেয়ে, বৃহস্পতিবার রাত থেকে তারা হাসপাতাল চত্বরে ধর্নায় বসে পড়েন। শেষ পর্যন্ত চাপে পড়ে, দুপুর দুটোর পরে ওই দুজনকে বার্ণপুরের রিভারসাইডে সেফ হোম বা এ্যাডমিনিস্ট্রেশান কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ভর্তি করে। এরপর কাজ বন্ধ করে দেওয়া ঠিকা কর্মীরা, তাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে কাজে ফেরেন।

Related Articles

Back to top button
Close