fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাইক চুরি চক্রের দুই পাণ্ডা গ্রেফতার জামালপুরে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় বর্ধমান: বাইক চুরির একটা বড়সড় চক্রের হদিশ পেল পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে বাইক চুরি চক্রের অন্যতম দুই পাণ্ডাকে। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের নাম রাহুল মণ্ডল ও বুলবুল মণ্ডল। তাদের বাড়ি নদিয়ার ধুবুলিয়া ও করিমপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। মঙ্গলবার ধৃত দুজনকে পেশ করা হয় বর্ধমান আদালতে।

বাইক উদ্ধার এবং চক্রের বাকি সদস্যদের হদিশ পেতে ধৃতদের ৭ দিন পুলিশি হেপাজত চেয়ে আদালতে আবেদন জানান তদন্তকারী অফিসার।
ভারপ্রাপ্ত সিজেএম দুই ধৃতের ২ দিন পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ডাকাতির উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়ার একটি মামলায় পুলিশ দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জামালপুরের বাইক চুরির ঘটনায় তাদের জড়িত থাকার কথা জানতে পারে। নদিয়ার সংশোধনাগারে গিয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন জামালপুর থানার তদন্তকারী অফিসার। জিজ্ঞাসাবাদে বাইক চুরিতে জড়িত থাকার তথ্য উঠে আসে। এরপরই তাদের গ্রেফতার করে জামালপুর থানার পুলিশ।

হেফাজতে নেওয়া ধৃতদের নিয়ে নদিয়ার ধানতলা থানার দত্তফুলিয়ায় পুলিশ তল্লাশি চালায়। সেখান থেকে অবশ্য পুলিশ বাইক উদ্ধার করতে পারেনি। ধৃতরা নানাভাবে পুলিশকে বিভ্রান্ত করে। এরপর তাদের নিয়ে জামালপুর থানার পুলিশ সোমবার রাতে স্থানীয় সেলিমাবাদে হানা দেয় । সেখান থেকে দু’টি চোরাই বাইক উদ্ধার হয়। তার মধ্যে একটি মন্তেশ্বর থানার মধ্যমগ্রাম থেকে চুরি করা। ধৃতরা জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে বাইক চুরি করেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জেনেছে। নদিয়ার চাপড়া ও উত্তর ২৪ পরগণার পেট্রোপলে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে চুরি করা বাইক তারা পাচার করতো বলেও পুলিশ জানতে পেরেছে।

বাইক চুরির গ্যাংটিতে বেশ কয়েকজন জড়িত রয়েছে বলে ধৃতরা পুলিশকে ধৃতরা জানিয়েছে। যে গ্যাংটির মূল পাণ্ডা নদিয়ার শান্তিপুর থানার এক যুবক। পুলিশ জানিয়েছে, কিছুদিন আগে জামালপুর থানার জৌগ্রামের হাটতলার বাসিন্দা রিঙ্কু দাসের বাইকটি চুরি হয়ে যায়। বাইকটি বাড়িতে রাখা ছিল। রাতে পাঁচিল টপকে ভিতরে ঢুকে দরজার তালা ভেঙে বাইকটি নিয়ে পালায় চোর। পরেরদিন সকালে বাইক চুরির বিষয়টি জানতে পারেন রিঙ্কু। সেদিনই তিনি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তার তদন্তে নেমেই বাইক চুরি চক্রের বিষয়ে পুলিশ জানতে পারে।

Related Articles

Back to top button
Close