fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় গ্রেফতার দুই তৃণমূল নেতা

মিলন পণ্ডা, পূর্ব মেদিনীপুর: পূর্ব মেদিনীপুরে বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় দুই তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃত হল শঙ্কর জানা ও সুভাস জানা।বৃহস্পতিবার ধৃতদের কাঁথি আদালতে তোলা হয়। ঘটনাটি ঘটছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভূপতিনগর থানার গাজীপুর গ্রামে। মৃত বিজেপি কর্মী গোকুলচন্দ্র জানা (৬২)। গোকুলবাবু ১৭৭ নং বুধে বিজেপি সম্পাদক ছিলেন। পুলিশ মৃতদেহটি কাঁথি হাসপাতালের ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে।খুনের অভিযোগ তুলে সবর হয়েছেন এলাকায় বিজেপি নেত্বয়রা।

জানা গেছে, গ্রামের তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী টিঙ্কু পালের করোনা ভাইরাস পজিটিভ থাকার সত্বেও কোন স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই এলাকায় দিব্যি ঘুরে বেড়াছেন। গ্রামের নলকূপ থেকে জল নিয়ে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সদস্যরা এলাকায় বাজারে ঘুরে বেড়াছেন। এনিয়ে বুধবার সকালে এলাকায় আশাকর্মী মিনতি জানার বাড়িতে যায়।তৃণমূলের নেতার পরিবারের স্বেচ্ছাচারিতা অভিযোগ জানায় বিজেপি বুধ সম্পাদক গোকুলচন্দ্র জানা। তখনই আশাকর্মীর স্বামী শঙ্কর জানা স্বজোরে কানে আঘাত করে বলে অভিযোগ। কিছুক্ষনের মধ্যে বিজেপি কর্মীর মৃত্যু হয়।ঘটনার খবর পেয়ে হাজির হয় বিজেপি মণ্ডল সভাপতি সহ অন্যন্য বিজেপি নেতৃত্বরা।

আরও পড়ুন: দীপাবলিতে বড় উপহার ব্যাঙ্ক কর্মীদের, বাড়ছে বেতন

দলীয়কর্মীর মৃত্যুতে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বুধবার উত্তরবঙ্গ থেকে তিনি বলেন, ‘অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজঙ্ক ঘটনা। অত্যাভারী, সমাজবিরোধীরা রাজ্য চালাচ্ছে। পুলিশ নীরব দর্শক। এই অত্যাচারের জবাব মানুষ দেবে। কাঁথি সাংগঠনিক জেলার  বিজেপি সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, ‘ভগবানপুর ২ ব্লকের সাতটি গ্রাম পঞ্চায়েৎ এলাকায় তৃণমূল সন্ত্রাস চালাচ্ছে। তারাই আমাদের কর্মীকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে।বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছি। পিলুশ কিচজু ব্যবস্থা না নিলে বৃহত্তর আন্দোলনে যাব। এই ঘটনায় তৃণমূলের কোনও যোগ নেই বলে দাবি করেছেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তর্ণমূল সম্পাদক কনিষ্ক পণ্ডা।

 

Related Articles

Back to top button
Close