fbpx
অফবিটপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা যুদ্ধে আক্রান্তদের পাশে বসিরহাটের দুই যুবক

শ্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: দুই বিপরীত ঘটনার সাক্ষী থাকল বসিরহাট। একদিকে দেখা গেল মানবতার নজির অপরদিকে মানুষের দুর্ব্যবহারের চিত্র। করোনা আক্রান্ত এক ব্যাঙ্ক কর্মীকে পিপিই কিট পরে হাসপাতালে ভর্তি করছেন দুই সমাজসেবী। যখন নিজের পরিবারের লোক, গ্রামবাসীরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন আক্রান্ত রোগীর থেকে। চলছে সামাজিক বয়কট। হাড়োয়া সদরপুর গ্রামে ওই ব্যাঙ্ক কর্মী পজিটিভ হ‌ওয়ায় তাকে গ্রামের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে তখন এগিয়ে এলেন এই দুই যুবক।

একজন বসিরহাট কলেজের অস্থায়ী কর্মচারী সুবীর সরকার, অন্যদিকে বসিরহাটের ভূমিপুত্র উত্তর ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক সুরজিৎ মিত্র ওরফে বাদল, করোনা যুদ্ধে সামিল হয়ে নিজেই পিপিই কিট পরে করোনা আক্রান্তদের সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছেন। সুবীর ও সুরজিৎবাবুরা নিজের উদ্যোগে কখনও কারুর বাড়িতে আবার কখনও দোকানে গিয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছেন।

আরও পড়ুন:শ্রাবন্তীর সঞ্চালনায় ২৫ জুলাই থেকে স্টার জলসায় আসছে ‘সুপার স্টার পরিবার…. 

বসিরহাট শহরে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১০ থেকে ১২ জন আক্রান্ত রোগীকে বসিরহাট জেলা হাসপাতাল ও গোপালপুরে কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন। বসিরহাট মহাকুমায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে, মৃত্যুর সংখ্যা ১০।
বসিরহাট শহর জুড়ে যখন লকডাউন ঘোষণা করেছে ব্যবসায়ী সমিতিরা, তখন নিজেদের মোটরসাইকেল গ্রামে গ্রামে ঘুরছেন এই দুই যুবক।

বসিরহাট পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বছর বাষট্টির বৃদ্ধকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করানো থেকে এবং এগারো নম্বর ওয়ার্ডের মৃত রোগীকে শ্মশানে নিয়ে যাওয়া থেকে ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা মাঝবয়সী মহিলার রক্ত পরীক্ষা করার জন্য বসিরহাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া সবই দায়িত্বের সঙ্গে সামলাচ্ছেন সুবীর ও সুরজিৎবাবু। তাদের কাজ ভরসা জুগিয়েছে হাড়োয়া ও বসিরহাটের সাধারণ মানুষের মধ্যে।

Related Articles

Back to top button
Close