fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সপ্তমীর রাতে ঠাকুর দেখে বাড়ি ফেরার পথে ১১ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই যুবকের বিরুদ্ধে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, দিনহাটা: সপ্তমীর রাতে ঠাকুর দেখে বাড়ি ফেরার পথে ১১ বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে উঠল দুই যুবকের বিরুদ্ধে। এই ঘটনা জানাজানি হতেই ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে দিনহাটার সিতাই ব্লকের ব্রহ্মোত্তরচাত্রা এলাকায় নির্যাতিতার পরিবারকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখানো হয় বলে অভিযোগ। এরপর মঙ্গলবার সিতাই থানায় গিয়ে নির্যাতিতার পরিবার লিখিত অভিযোগ জানায়। এরপরেই নির্যাতিতার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দিনহাটা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এই ঘটনা সালিশি সভা করে মিটিয়ে নেওয়ার জন্য নির্যাতিতার পরিবারকে চাপ দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। পরিবার সূত্রে খবর, গত ২৩ অক্টোবর রাত্রি সাড়ে নয়টা নাগাদ নতুন বস স্কুল মাঠে দুর্গা প্রতিমা দেখে ফেরার পথে অভিযুক্ত দুই যুবক নাবালিকাকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি যাতে জানাজানি না হয় সেজন্য সালিশি সভা করে বিষয়টি মিয়ে নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এরপর অভিযুক্ত যুবকের লোকেদের ভয়-ভীতি উপেক্ষা করে মঙ্গলবার সিতাই থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতার পরিবার।

নাবালিকা ধর্ষণের খবর জানতে পেরেই বুধবার ওই বাড়িতে গিয়ে পরিবারের লোকেদের সাথে কথা বলেন সাংসদ নিশীথ প্রামানিক, বিজেপির কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা, দলের কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার, যুব মোর্চার জেলা নেতা অজয় সাহা সহ দলের অন্যান্য নেতৃত্ব। অভিযুক্ত দুই যুবক পলাতক বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। পুলিশ ওই ঘটনার তদন্তের পাশাপাশি অভিযুক্তদের খোঁজ শুরু করেছে। অভিযুক্ত দুই যুবককে তৃণমূলের সঙ্গে জড়িত বলে বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য বলেন, ধর্ষকরা কোনও দলের হতে পারে না। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

বিজেপি জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা বলেন, “পুজো দেখে ফেরার পথে ১১ বছরের এক নাবালিকাকে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে তৃণমূল আশ্রিত দুই দুষ্কৃতি। এরপর নির্যাতিতার পরিবারকে প্রলোভন ও হুমকি দেওয়া হয়। এমনকি সালিশি সভা করে মেটানোর চেষ্টা করা হলেও মঙ্গলবার ওই  নাবালিকার পরিবার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছি। ” সাংসদ নিশীথ প্রামানিক বলেন, এ রাজ্যে মহিলাদের কোনও নিরাপত্তা নেই। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মহিলা হওয়া সত্ত্বেও আট থেকে আশি অনেকেই নানাভাবে ধর্ষিতা ও নির্যাতিত হচ্ছে।প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জানাতে গেলেও নানাভাবে ভয়-ভীতির মুখে পড়তে হচ্ছে পরিবারকে।

তৃণমূল নেতা সিতাই কেন্দ্রের বিধায়ক জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়া বলেন, “যারা এধরনের কাজ করে তারা কোনও দলের হতে পারে না। নাবালিকা ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তরা যাতে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি পায় তার জন্য ইতিমধ্যে সিতাই থানার পুলিশকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।” দিনহাটার এসডিপিও মানবেন্দ্র দাস বলেন, “এই ঘটনায় মঙ্গলবার সিতাই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।”

Related Articles

Back to top button
Close