fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে হাওড়া সহ উলুবেড়িয়া, গ্রেফতার হলেন সুকান্ত

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্ক: নবী সা. কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে উত্তপ্ত হাওড়া সহ তার পার্শ্ববর্তী এলাকা। শুক্রবার থেকে চলা বিক্ষোভের জেরে এখন স্তব্ধ হাওড়া। একাধিক ট্রেন বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। বিক্ষোভ আন্দোলনে উত্তপ্ত হাওড়ায় যাওয়ার পথে বিদ্যাসাগর সেতুর টোলপ্লাজা থেকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এদিন নিউটানের বাড়ি থেকে বেরনোর সময় তাকে বাঁধা দিয়েছিল বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের আধিকারিকরা। আগে থেকেই টোল প্লাজার কাছে বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন ছিল। উপস্থিত ছিলেন সদর ও নর্থ ডিভিশনের ডিসি। গাড়ি বিদ্যাসাগর সেতুর টোল প্লাজায় পৌঁছালেই সুকান্ত মজুমদারকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাঁর সঙ্গে থাকা বিজেপি কর্মীদেরও গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের গাড়িতে করেই তাঁকে লালাবাজারে নিয়ে আসা হয়। গ্রেফতার করা হয় পুরশুড়ার বিজেপি বিধায়ক বিমান ঘোষ ও আসানসোল দক্ষিণের বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পালকেও। এরপরই সুকান্ত মজুমদারকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে শহর জুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়।

ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় উলুবেড়িয়া সাব ডিভিশনে কারফিউ জারি হয়েছে। ১৩ জুন পর্যন্ত এই কারফিউ জারি থাকবে। রাজ্যের একাধিক জায়গায় চলছে বিক্ষোভ।

 

সুকান্ত মজুমদার অভিযোগ করেন, ‘আমি হাওড়া যেতে চাই। কিন্তু পুলিশ আমাকে বাড়িতে আটকে দিয়েছে। পুলিশ দলদাসে পরিণত হয়েছে। আমাকে আটকে দেওয়ার কোনও কারণ দেখাতে পারেনি পুলিশ। বলছে হাওড়ায় ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে বলে আমাকে যেতে দেবে না। কিন্তু আমার বাড়িতো নিউটাউনে। হাওড়া থেকে অনেক দূরে। আমি যখন সকাল ১১ টায় বাড়ি থেকে বেরোতে গিয়েছিলাম তখন পুলিশ আমাকে আটকে দেয়। পুলিশ কোনও কাগজ বা লিখিত নির্দেশ দেখাতে পারেনি। কেন আমাকে গৃহবন্দি করে রাখতে চাইছে, বুঝতে পারছি না।’ শনিবার সকালে উলুবেড়িয়ার মনসা তলায় অগ্নিদগ্ধ পার্টি অফিস পরিদর্শনে যান বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানেই তাঁর সঙ্গে যাওয়ার কথা ছিল রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার এবং প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের। সেখানে যাওয়ার পথেই বিদ্যাসাগর সেতুতে ওঠার মুখে বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালকেও আটকে দেয় পুলিশ।

শুক্রবার কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় অঙ্কুরহাটি, ধুলাগড়, উলুবেড়িয়া সহ একাধিক জায়গায়। হাওড়ার পাঁচলা, মনসাতলা, নিমদিঘি, চেঙ্গাইল সহ সোনাতলা, বাউড়িয়া, উদয়নারায়নপুর, বাগনান সহ বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

জানাতে থাকেন। পরে লালবাজারের ভিতরে ঢুককার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা

Related Articles

Back to top button
Close