fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লুকিয়ে দেওয়া হচ্ছিল নাবালিকার বিয়ে, রুখে দিল পুলিশ ও চাইল্ডলাইন

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: নাবালিকাকে অন্যত্র নিয়ে গিয়ে তার  বিয়ের সমস্ত আয়োজন সেরে ফেরেছিল পরিবার । গোপন সূত্রে সেই খবর পেয়ে পুলিশ ও চাইল্ডলাইন আধিকারিকরা পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের নিগন গ্রামে পৌছে রুখে দিল নাবালাকার বিয়ে । প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত নাবালিকার বিয়ে আর দেবেন না বলে প্রশাসনের কাছে মুচলেখা দিয়েছে নাবালিকার অবিভাবকরা ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , নাবালিকার নিজের বাড়ি কাটোয়ার পলাসন গ্রামে । সে সেখানকার মেজিয়ারী উচ্চ বিদ্যালয়ের একাদশ  শ্রেণীর ছাত্রী । মঙ্গলকোটের নিগন গ্রামে তার পিসির বাড়ি । সেখান থেকেই নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ে দেওয়া হচ্ছিল । এই খবর গোপন সূত্রে পৌছায় মঙ্গলকোট থানায় ও বর্ধমান চাইল্ড লাইনে । খবর পাওয়া মাত্রই  চাইল্ড লাইন আধিকারিক অরুপ সাহাকে  সঙ্গে নিয়ে  মঙ্গলকোটের কৈচর ফাঁড়ির আই,সি সোমনাথ মুখোপাধ্যায় সহ অন্য পুলিশ কর্মীরা নিগনে নাবালিকার পিসির বাড়ি পৌছায় । ছাত্রীর বয়সের প্রমাণ পত্র তারা দেখতে চান ।তখনই সামনে আসে ছাত্রীর বিয়ে দেবার বয়স এখনও  হয়নি ।  এরপরেই পুলিশ ও চাইল্ড লাইন আধিকারিক নাবালিকার বিয়ে বন্ধ করে দেন ।

চাইল্ড লাইন আধিকারিক অরূপ সাহা বলেন, নাবালিকার বিয়ে দেওয়া যে বেআইনি তা বোঝাতে সরকারিভাবে  সচেতনতা প্রচার চালানো হচ্ছে । স্কুলে স্কুলেও  অনুষ্ঠান করে ছাত্র-ছাত্রীদের বোঝানো হচ্ছে। এত কিছুর পরেও কিছু অবিভাবক লুকিয়ে চুরিয়ে নাবালিকাদের বিয়ে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে । নিগনের ঘটনা তারই প্রমাণ ।

Related Articles

Back to top button
Close