fbpx
হেডলাইন

অসমাপ্ত বাঁধ নির্মাণের কাজ, শহর প্লাবিত হওয়ার আশংকা কুলিকের জলে

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ ব্লকের পিরোজপুর এলাকায় কুলিক নদী বাঁধের কাজ অসম্পূর্ণ থাকায় চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন রায়গঞ্জ শহরের বাসিন্দারা। সেচ দফতরের আধিকারিকের দাবি বর্ষার মরসুমে এই সমস্যার সমাধান করা যাবে না। খরা মরসুমে অসামাপ্ত বাঁধ নির্মাণের কাজে হাত দেবার পরিকল্পনা আছে।

 

উল্লেখ্য, রায়গঞ্জ শহরকে বন্যার  হাত থেকে রক্ষা করতে বাঁধ দেওয়া হয়েছিল কুলিক নদীতে। রায়গঞ্জ ব্লকের পিরোজপুর এলাকা পর্যন্ত গিয়ে সেই বাঁধ নির্মাণের কাজ থমকে রয়েছে। কুলিক নদীর জল বাড়লেই এই পথ দিয়ে জল ঢুকে প্রতিবছর রায়গঞ্জ শহরকে প্লাবিত করে। এবারেও কুলিক নদীর জলস্তর বেড়ে গিয়েছে । জল বাড়লেই রায়গঞ্জ শহরের মানুষ বন্যার আতঙ্কে দিন গোনে। জেলা সেচ দফতরের আধিকারিক উত্তম হাজরা বলেন, ২০০১ সাল থেকে জমি জটের কারনেই বাঁধ নির্মানের কাজ থমকে আছে। নদীর জল বেড়ে গেলে শহর প্লাবিত হতে পারে। তবে বর্ষার মধ্যে বাঁধ নির্মানের কাজ শুরু করা যাবেনা। আমরা ঐ এলাকা পরিদর্শন করে যাতে পরবর্তীতে কাজ শুরু করা যায় তার চেষ্টা করবো। যদিও  সেচ দফতরের এই অভিযোগ মানতে চাননি কমলাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান প্রশান্ত দাস।

 

প্রশান্তবাবু জানিয়েছেন, ২০০১ সালে বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছিল। বাঁধ উচু হলে ওই এলাকার মানুষ যাতায়াতের ক্ষেত্রে  সমস্যার মধ্যে পড়তে পারেন।এই আশঙ্কা করে এলাকার মানুষ বাধ উচু করতে দেন নি। নদীর নাব্যতা কমে যাবার ফলে নদীর জল বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই পথ দিয়ে জল শহরে ঢুকে পড়ছে। প্রধান  আরো বলেন, সেচ দফতর অসামাপ্ত বাঁধের কাজ করতে চাইলে পঞ্চায়েতের তরফ থেকে সবরকম সহায়তা করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close