fbpx
দেশহেডলাইন

আশা প্রত্যাশার বাজেট পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন

বিরোধীদের কাছে এই  বাজেট ‘অন্তঃসারশূন্য’, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য' এ বাজেট উন্নয়নমুখী ভাবনার প্রতিফলন'

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ আশা প্রত্যাশার বাজেট পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বিরোধীদের কাছে এই  বাজেট একেবারে ‘অন্তঃসারশূন্য’। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, এ বাজেট উন্নয়নমুখী ভাবনার প্রতিফলন।

এক নজরে বাজেটঃ

 

সস্তা হচ্ছে

  • স্টিলের উপজাত দ্রব্য
  • মোবাইল ফোন
  • চার্জার
  • কৃষি সরঞ্জাম
  • পোশাক
  • হীরে এবং মূল্যবান রত্ন
  • ইমিটেশনের গয়না
  • জুতো
  • চামড়ার ব্যাগ
  • পেট্রোলিয়াম পণ্য উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় রাসায়নিক।

o  দাম বাড়ল

বিদেশি ছাতা

o   বিদেশ থেকে আমদানিকৃত যে কোনও পণ্য

চলতি বছরেই ৫ জি পরিষেবা চালু করতে স্পেকট্রাম নিলাম করার প্রক্রিয়া শুরু হবে। এ ছাড়া এই পরিষেবা চালু করার ক্ষেত্রে পারফরমেন্স লিংকড ইনসেনটিভ পিএলআই স্কিম আনবে কেন্দ্র। গ্রামাঞ্চলে ব্রডব্যান্ড পরিষেবা আরও বিস্তৃত হবে।

স্পেকট্রাম নিলামের প্রক্রিয়া শুরু হবে মাস কয়েকের মধ্যে। টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অব ইন্ডিয়া ৫ জি স্পেকট্রাম নিলামের সুপারিশ করলেই সেই প্রক্রিয়া শুরু হবে ।

১. গ্রামাঞ্চলে ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে যাতে সহজে ও সস্তায় ব্রডব্যান্ড পরিষেবা পাওয়া যায়, সেই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী

ভারত নেট কানেকটিভিটি প্রজেক্ট নিয়ে সম্পর্কে সীতারামন জানান, শহরাঞ্চলের মতোই গ্রামের প্রত্যেক পরিবার যাতে সমান ইন্টারনেট ও টেলি যোগাযোগ পরিষেবা পায়, সেটাই কেন্দ্রীয় সরকারের লক্ষ্য।

৩. গ্রামগুলিতে অপটিক্যাল ফাইবারের বিস্তার বাড়িয়ে ইন্টারনেট ও টেলি যোগাযোগ পরিষেবা আরও উন্নত করা হবে।

৪. প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলিকেও ভারত নেট কানেকটিভিটি প্রজেক্টের আওতায় আনা হবে। ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে পিপিপি মডেলে সেই কাজ শুরু হবে। ২০২৫-এর মধ্যে কাজ সম্পূর্ণ করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে।

ডিজিটাল ব্যাঙ্কিংয়ে উৎসাহে ৭৫ জেলায় ৭৫ টি ডিজিটাল ব্যাঙ্কিং শাখা খোলা হবে। তাঁর সংযোজন, ১০০ শতাংশ পোস্ট অফিসই কোর ব্যাঙ্কিংয়ের আওতায় আসবে। অনলাইনেই ব্যাঙ্ক থেকে পোস্ট অফিসে টাকা লেনদেন করা যাবে। সুবিধা মিলবে এটিএম, নেট ব্যাঙ্কিংয়েরও।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ৪৮ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের ঘোষণা। ৮০ লক্ষ বাড়ি তৈরির লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে এই যোজনার অধীনে। এছাড়াও পানীয় জলে ৫০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ।

নার্বাডের মাধ্যমে কৃষির সঙ্গে যুক্ত স্টার্টআপগুলিকে সাহায্য করা হবে।

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে অত্যাধুনিক পরিকাঠামোয় জোর দিচ্ছে কেন্দ্র। সৌরবিদ্যুতে ১৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা আর্থিক বরাদ্দের ঘোষণা করলেন অর্থমন্ত্রী।

২০২৫ সালের মধ্যে দেশের সব গ্রামে অপটিক্যাল ফাইবার বসানোর ঘোষণা।

চিংড়ি মাছের চাষে বিশেষ ছাড়ের প্রস্তাব, সস্তা হচ্ছে কৃষি যন্ত্রপাতি

সস্তা হচ্ছে পোশাক চামড়াজাত দ্রব্য

সস্তা হচ্ছে জুতো, হীরের গয়না

দাম বাড়ছে ইস্পাতজাত দ্রব্যের

সস্তা হচ্ছে মোবাইল চার্জার

ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে সামঞ্জস্য আনার উদ্যোগ

দেশের শিশুদের জন্য বিশেষ উদ্যোগ কেন্দ্রের। নতুন পরিকল্পনা ঘোষণা। টিভি চ্যানেলের (one class, one TV channel) মাধ্যমে যাতে দেশের বেশিরভাগ শিশুর কাছে শিক্ষা পৌঁছে দেওয়া যায়, তার ব্যবস্থা করবে কেন্দ্রীয় সরকার। তাই শিশুদের জন্য নতুন টিভি চ্যানেল আনার কথাও ঘোষণা।

তফশিলি জাতি ও উপজাতিদের জন্য নতুন করে টিভি চ্যানেল তৈরি হবে। মোট ২০০ টিভি চ্যানেল তৈরির কথা হয়েছে বাজেটে। আঞ্চলিক ভাষায় শিক্ষাপ্রসারে টিভি চ্যানেল তৈরির উদ্যোগ।

ডিআরডিও-র সঙ্গে এবার কাজ করবে বেসরকারি সংস্থাও। ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে আর্থিক সহায়তার মেয়াদ বাড়ল মার্চ অবধি। ক্ষুদ্র শিল্পে জোর দিতে ‘ওয়ান নেশন, ওয়ান শপ প্রকল্প।’

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে উৎসাহ দিতে ২ লক্ষ ৭৩ কোটি টাকার প্রকল্প নেওয়া হয়েছে, ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর। রেলে পিপিপি মডেলকে আরও উৎসাহ দেওয়া হবে। পার্বত্য অঞ্চলে জাতীয় রোপওয়ে প্রকল্প। ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ ৮টি রোপওয়ে চালু হবে।

রেল পরিষেবায় আধুনিকতায় জোর। কিছুদিনের মধ্যেই LIC শেয়ার বাজারে ছাড়া হবে। রেল, সড়ক, জলের পরিকাঠামো উন্নয়েনে জোর। ৩ বছরে ৪০০ নতুন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস। পাঁচ বছরে ষাট লাখ কর্মসংস্থানই লক্ষ্য।

কৃষকদের ৭ লক্ষ কোটি টাকা ন্যূনতম সহায়ক মূল্য দেওয়া হবে। সেচ ও পানীয় জলের জন্য ৪৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের ঘোষণা। ২.৩৭ লক্ষ কোটি টাকার এমএসপি দেওয়া হবে।

কর ব্যবস্থার সরলীকরণ করা হবে। প্রত্যক্ষ কর ব্যবস্থার সংস্কারে বিশেষ জোর দেওয়া হবে। করদাতারা আপডেটেড রিটার্ন ফাইল করতে পারবেন ২ বছরের মধ্যে। ডিজিটাল মুদ্রা ব্যবস্থাতেও জোর দিল কেন্দ্র। চলতি বছর থেকেই বাজারে ডিজিটাল মুদ্রা আনবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। দু বছরের মধ্যে আপডেট রির্টান ফাইল জমা। ন্যাশনাল পেনসন স্কিমে সামঞ্জস্য আনার উদ্যোগ

এখনও পর্যন্ত ৮০ লক্ষ মানুষ পিএম আবাস যোজনার সুবিধা পেয়েছেন৷ টেলি মেন্টাল হেলথ প্রোগ্রাম শুরু করা হবে।

অ্যানিমেশন, কমিকস, গেমিংয়ে টাস্কফোর্স গঠন করা হবে।বিভিন্ন ক্ষেত্রে পেমেন্টের জন্য ই-বিল ব্যবস্থা চালু হবে। ব্যবসার উন্নতিতে সিঙ্গল উইন্ডো সিস্টেম, একটি ফর্মে সমস্ত অনুমোদন সম্ভব হবে।

প্রতি ঘরে নলবাহিত পানীয় জল প্রকল্পে ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে ৩.৮ কোটি পরিবারের জন্য বিপুল বরাদ্দ করা হল।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close