fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ড্রাগনের গগনে ‘মার্কিন ঈগলের’ ঝাঁক, সাংহাইয়ের আকাশে চক্কর খেল মার্কিন B52 Bombers

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে উত্তেজনা বাড়ছে চিন-মার্কিন সম্পর্কে। দক্ষিণ চিন সাগরে মার্কিন রণতরী আগ্রাসী হয়ে উঠছে চিনের উপকূলের দিকে, ‌অন্যদিকে চিনের আকাশসীমায় ঘুরপাক খেতে দেখা যাচ্ছে মার্কিন যুদ্ধ বিমানগুলোকে।

এই মহাশক্তিধর দুই দেশের উত্তেজনার মধ্যে আমেরিকান যুদ্ধবিমান চিনের সাংহাই শহরের খুব কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। এর মধ্যে হঠাৎ সাংহাইয়ের কাছাকাছি আমেরিকান বিমান দেখা দেওয়ায় তা আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে।

সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থার একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, রবিবার মার্কিন যুদ্ধ বিমান তাইওয়ানের উপর দিয়ে উড়ছিল। তাইওয়ানের এই বিমানবন্দরটি চিনের ঝিজিয়াং এবং ফুজিয়ান সৈকতের কাছে। এই সৈকত দুটি থেকে আবার সাংহাই শহর কাছেই অবস্থিত।
খবরে দাবি করা হয়েছে যে আমেরিকান ফাইটার বিমান কিছুক্ষণের জন্য সাংহাইয়ের খুব কাছাকাছি চলে গিয়েছিল। খবর অনুসারে সাংহাই থেকে সাড়ে ৭৬ কিমি দূরে ছিল মার্কিন যুদ্ধ বিমান B52 Bombers।

আমেরিকার বিমানের সাংহাই এর কাছে পৌঁছে যাওয়া নিয়ে টুইটও করা হয় চিনে। পরে অবশ্য বিমানের ফিরে যাওয়ার কথাও জানানো হয়।

বর্তমানে ভারত চিন সীমান্ত সমস্যার প্রভাব স্পষ্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চিনের পারস্পরিক সম্পর্কে। তারউপর রয়েছে করোনা ইস্যুতে মন কষাকষি। সব মিলিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চিনের সম্পর্ক মোটেই ভালো নয়।

কিছুদিন আগেই হিউস্টনে চিনা কনস্যুলেট বন্ধ করে দেয় আমেরিকা। এরপর প্রত্যাঘাত ছুঁড়ে চিনের চেংদুতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কনস্যুলেট বন্ধ করার নির্দেশ দেয় পিপলস রিপাবলিক অফ চিন। একদিকে করো না আবহে ট্রেড ওয়ার যখন চরমে তখনই মার্কিন সামরিক সংঘাতের আবহাওয়া তৈরি হয়ে গেল তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মহল।

Related Articles

Back to top button
Close