fbpx
দেশহেডলাইন

নজিরবিহীন ঘটনা, তিনটি রাজধানী তৈরির প্রস্তাব অন্ধ্রপ্রদেশে, অনুমতি দিলেন রাজ্যপাল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এবার কার্যত এই নজিরবিহীন ঘটনা ঘটতে চলেছে অন্ধ্রপ্রদেশে। তেলেঙ্গানা ভাগ হয়ে যাওয়ার পর তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু দুই রাজধানীর কথা ভেবেছিলেন। কিন্তু বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি তিন রাজধানীর দিকেই ঝুঁকে ছিলেন। সচিবালয়, আইনসভা ও বিচারবিভাগ। প্রশাসনের তিনটি অঙ্গের জন্য তিনটি রাজধানী তৈরির প্রস্তাব দিয়েছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি। শুক্রবার এই সংক্রান্ত দু’টি বিলে সই করলেন রাজ্যপাল বিশ্বমোহন হরিচন্দন।

এদিন অন্ধ্রপ্রদেশের রাজ্যপাল বিশ্বভূষণ হরিচাঁদ এই সংক্রান্ত বিলে স্বাক্ষর করেন। ফলে অন্ধ্রপ্রদেশের তিন রাজধানী বাস্তবে হওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা। জানা গিয়েছে, বিশাখাপত্তনম, অমরাবতী ও কুর্নুল এই তিন শহরকে রাজধানী করা হচ্ছে। বিশাখাপত্তনম হচ্ছে সমস্তরকম প্রশাসনিক কাজকর্মের রাজধানী। অমরাবতী হচ্ছে সংসদীয় ক্ষেত্রের রাজধানী এবং কুর্নুল হচ্ছে আইন সংক্রান্ত ক্ষেত্রের রাজধানী। বিল দু’টির নাম অন্ধ্রপ্রদেশ ডি সেন্ট্রালাইজেশন অ্যান্ড ইনক্লুসিভ ডেভলপমেন্ট অব অল রিজিয়নস বিল ২০২০ এবং এপি ক্যাপিটাল রিজিয়ন ডেভলপমেন্ট অথরিটি (রিপিল) বিল ২০২০।

অর্থাৎ মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের কার্যালয় এবং সরকারি দফতরগুলি থাকবে বিশাখাপত্তনমে। রাজ্য বিধানসভা হবে অমরাবতীতে এবং রাজ্যের উচ্চ আদালত হবে কুর্নুলে। ইতিমধ্যেই সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে অনেক কৃষকই হাইকোর্টে মামলা করেছে। পাশাপাশি, বিরোধী দলনেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু জানিয়েছেন, সরকারের এই সিদ্ধান্ত ঐতিহাসিক ভুল। এই সিদ্ধান্ত রাজ্যকে পিছিয়ে যেতে সহায়তা করবে। কারণ, একদিকে এতে সরকারের কাজের ক্ষেত্রে খরচ যেমন বাড়বে, তেমনি সম্বন্বয় রক্ষা করার বিষয়টিও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

আরও পড়ুন: মর্মান্তিক, বিশাখাপত্তনমে ক্রেন ভেঙে মৃত ১০

যদিও বিরোধীদের তোলা এই অভিযোগে কান দিতে রাজি নয় সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের সঙ্গে এই নিয়ে কথা বলা হয়েছে। কেন্দ্রও সায় দিয়েছে। তারপর রাজ্যপাল স্বাক্ষর করে দিয়েছেন। ফলে এখন আইন তৈরি হয়ে বিধানসভায় পাশ হলেই আনুষ্ঠানিকভাবে দেশের মধ্যে প্রথম এক রাজ্যের তিন রাজধানীর সূচনা হবে। সেটা এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা।

 

Related Articles

Back to top button
Close