fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কেতুগ্রামে সিভিক ভলেন্টিয়ারের স্ত্রী’র অস্বাভাবিক মৃত্যু, চাঞ্চল্য

দিব্যেন্দু রায়, কেতুগ্রাম: এক সিভিক ভলেন্টিয়ারের স্ত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল  কেতুগ্রাম থানার কাজিপাড়া গ্রামে। মৃতার নাম রুকসানা বিবি(২৮)। সোমবার সকালে শ্বশুরবাড়ি থেকে তার দেহ উদ্ধার  হয়। মারধরের জেরেই রুকসানার মৃত্যু হয়েছে বলে মৃতার বাপের বাড়ির লোকজন সন্দেহ প্রকাশ করে। তবে এদিন বিকেল পর্যন্ত এই নিয়ে তাঁরা নির্দিষ্ট কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, কেতুগ্রামের খলিপাড়া গ্রামে বাপের বাড়ি রুকসানা বিবির। বছর দশেক আগে কাজিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা নুর আলি শেখের সঙ্গে তার দেখাশোনা করে বিয়ে হয়। তাদের ২ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। নুর আলি আগে ভিনরাজ্যে কাজ করতেন। পরে  কেতুগ্রাম থানায় সিভিক ভলেন্টিয়ারের কাজ পান। সেই থেকে তিনি কেতুগ্রাম থানায় সিভিক ভলেন্টিয়ারের কাজে নিযুক্ত রয়েছেন। বিয়ের পর থেকেই নুর আলি শেখ  রুকসানার উপর নির্যাতন চালাতো বলে অভিযোগ মৃতার বাপের বাড়ির লোকজনের।

আরও পড়ুন:‘শুক্র গ্রহ আমাদের দেশের সম্পত্তি’, আজব দাবি রাশিয়ার

মৃত বধূর দাদা মারজুল শেখ জানিয়েছেন, তার বোনের উপর অত্যাচারের কারণে বিয়ের দুবছরের মাথায়  ডিভোর্স হয়ে গিয়েছিল। যদিও ডিভোর্সের কয়েক মাস পর  দুই পরিবারের মধ্যস্থতায় ফের সম্পর্ক জোড়া লাগে। সেই থেকে শ্বশুর বাড়িতেই ছিল  রুকসানা। এরপর এদিন সকালে তাঁরা খবর পান রুকসানা মারা গেছে।  খবর পেয়েই তাঁরা  কাজিপাড়া গ্রামে রুখসানার শ্বশুরবাড়িতে এসে তার মৃত দেহটি পড়ে থাকতে দেখেন। মারজুল শেখ বলেন, ” আমার বোনের দেহে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ছিল। তা থেকে আমাদের সন্দেহ হয় রুকসানাকে মারধর করে মেরে ফেলা হয়েছে।”

জানা গেছে, বধূর দেহটি প্রথমে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

Related Articles

Back to top button
Close