fbpx
আন্তর্জাতিকআমেরিকাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

‘পরিবর্তন’মার্কিন মুলুকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত বাইডেন

'প্রতিজ্ঞা করছি, আমি সকলের প্রেসিডেন্ট হব', বার্তা বাইডেনের,

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  ট্রাম্পকে শেষ পর্যন্ত ওভারট্রাম্প! মার্কিন সাম্রাজ্যের অধিপরি হলেন জো বাইডেন। বারাক ওবামার একসময়ের সহযোগী তথা তত্‍কালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেনের দখলেই হোয়াইট হাউস। আমেরিকার ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন তিনি। ৭৭ বছর বয়সী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন হারিয়ে দিলেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। তিন দিন ধরে চলেছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। জয়ের আশা ছিল ট্রাম্পের। বারবার গলার জোরে জয়ের বার্তা দিয়েছেন তিনি। কিন্তু শেষ হাসি হাসলেন বাইডেন।

পঞ্চম দিনের ভোট গণনা শুরু হতেই পেনসিলভেনিয়ার ২০টি ইলেক্টোরাল ভোট চলে যায় বাইডেনের ঝুলিতে। ফলে সহজেই ২৭০টি ইলেক্টোরাল ভোটের ম্যাজিক ফিগার পার করে ফেলেন তিনি। তাঁর ইলেক্টোরাল ভোটের সংখ্যা এখন ২৯০। অন্যদিকে, ডোনাল্ড ট্রাম্প আটকে রইলেন ২১৪তেই। ফলে আমেরিকার সবচেয়ে বেশি বয়স্ক প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন বাইডেন। ইতিমধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়ারও নজির গড়ে ফেলেছেন তিনি।এদিন পেনসিলভেনিয়ায় জয়লাভ করেই সেই ম্যাজিক অঙ্ক জোগাড় করে ফেলতেই সুনিশ্চিত হয়ে যায়, ডোনাল্ড ট্রাম্প জমানার অবসান ঘটিয়ে মসনদে বসতে চলেছেন বাইডেন।

ঐতিহালিক জয়ের পর টুইট করে বাইডেন বলেন, ”আমেরিকা, আমায় নির্বাচিত করার জন্য় আমি সম্মানিত। সামনের কাজ কঠিন হবে। কিন্তু আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, আমি সকল আমেরিকানের প্রেসিডেন্ট হব। আপনি আমায় ভোট দিয়েছেন বা দেননি, আমি আপনাদের ভরসা রাখব”।প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েই দেশের করোনা পরিস্থিতি সামাল দেওয়াকেই তিনি সর্বাধিক অগ্রাধিকার দেবেন, আজ জানান জো বাইডেন। পাশাপাশি, অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা, বর্ণ বৈষম্য দূর করার দিকেও তিনি জোর দেবেন বলে দাবি বাইডেনের।

এদিকে, ভোটে দুর্নীতি, ফের গণনার দাবি তুলেছিলেন রিপাবলিকাররা। কিন্তু, সময় এগোতে এবার সরাসরি বাইডেনকে কটাক্ষ ছুড়ে দেন ট্রাম্প। ডেমোক্র্য়াট প্রার্থী যেন প্রেসিডেন্ট হওয়ার মিথ্যা দাবি না করেন তা নিয়ে সতর্ক করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পেনসিলভেনিয়ার ফল আসার আগে পর্যন্তও অবশ্য হুঙ্কার দিয়ে যাচ্ছিলেন ট্রাম্প। ভোটে পিছিয়ে থাকলেও হার মানতে নারাজ ছিলেন তিনি। কখনও আদালতে যাওয়ার হুমকি, কখনও আবার ভোটে কারচুপির অভিযোগ তুলছেন। আবার নিজেই ঘোষণা করে দিচ্ছেন, ‘‘‌আমি এই ভোটে জিতে গিয়েছি।’‌’ এছাড়াও‌ একাধিক ভুয়ো অভিযোগ তুলে টুইটও করেছেন। যার কোনও নির্দিষ্ট প্রমাণও নেই। কিংবা আদালত খারিজ করে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে দেয় জো বিডেন শিবির।

ট্রাম্পের নাম না করেই বাইডেনের শিবিরের মুখপাত্র অ্যান্ড্রু বেটস জানান, হোয়াইট হাউসে কোনও ‘‌অনুপ্রবেশকারীকেই’‌ রেয়াত করা হবে না। কেউ থাকলে তাঁকে অবশ্যই বের করে দেওয়া হবে। অর্থাৎ তাঁরা কোনওভাবেই ট্রাম্পের উদ্ধত আচরণ বরদাস্ত করবেন না। আগামী জানুয়ারি মাসে মেয়াদ শেষ হলেই হোয়াইট হাউস থেকে বেরিয়ে যেতে হবে। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে বেটস বলেন, ‘‌‘১৯ জুলাই আমরা বলেছিলাম, আমেরিকার সাধারণ মানুষই এবারের ভোটের ফলাফল ঠিক করবে। আর মার্কিন সরকার হোয়াইট হাউস থেকে যেকোনও অবৈধ বসবাসকারীকে বের করে দিতে সক্ষম।‌’

 

Related Articles

Back to top button
Close