fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

মহাকাশে অস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে বিবাদে আমেরিকা-ব্রিটেন-রাশিয়া

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: মহাকাশে উপগ্রহ-বিরোধী অস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে রাশিয়া; আমেরিকা-ব্রিটেনের আনা এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করলো মস্কো। রুশ বিদেশ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, উভয় দেশ মহাকাশে রাশিয়ার উৎক্ষেপকের ব্যাপারে তথ্য বিকৃত করেছে। দুই দেশেরই উচিত রাশিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচার না চালিয়ে বরং পেশাদারিত্ব প্রদর্শন করা। গত ১৫ জুলাই যে পরীক্ষা চালানো হয়েছে, তা মহাকাশে অন্যান্য যানের জন্য কোনও হুমকি তৈরি করেনি। এমনকি এটি আন্তর্জাতিক কোনও আইনেরও লঙ্ঘন করেনি।

এর আগে মস্কো জানিয়েছিল, তারা মহাকাশে রাশিয়ার যন্ত্রপাতি পরীক্ষার জন্য নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার করছে। কিন্তু আমেরিকা এবং ব্রিটেন বলেছে, তারা মহাকাশে রাশিয়ার কার্যক্রম নিয়ে উদ্বিগ্ন।
এ প্রসঙ্গে, ব্রিটিশ স্পেস ডাইরেক্টোরেটের প্রধান এয়ার ভাইস মার্শাল হার্ভে স্মিথ বলেছেন, “রাশিয়া সম্প্রতি মহাকাশে যে স্যাটেলাইট পরীক্ষা চালিয়েছে তা চরিত্রগত দিক থেকে অস্ত্রের মত। এটি নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। এ ধরনের কার্যক্রম মহাকাশের শান্তিপূর্ণ ব্যবহারকে ঝুঁকির মুখে ফেলে এবং সেখানে ধ্বংসস্তূপের ঝুঁকি তৈরি করে। যার ফলে মহাকাশে যেকোনও ধরনের স্যাটেলাইট ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আমাদের পৃথিবী যে মহাকাশের ওপর নির্ভরশীল, সেটিকেও ঝুঁকির মুখে ফেলতে পারে এমন কর্মকাণ্ড।”

অন্যদিকে, মার্কিন স্পেস কমান্ড দাবি করেছে, গত ১৫ জুলাই রাশিয়া মহাকাশে উপগ্রহ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে। রাশিয়ার কসমস স্যাটেলাইটের মাধ্যমে কক্ষপথে অস্ত্র পাঠানো হয়েছে। রাশিয়ার এই অস্ত্র পাঠানোর ঘটনা সত্য, মারাত্মক এবং ক্রমবর্ধমান।”

তবে, এক বিবৃতিতে রাশিয়ার বিদেশ মন্ত্রণালয় বলছে, তাদের একটি পরিদর্শক স্যাটেলাইট মহাকাশে মস্কোর যানের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। সেটি বিশেষায়িত ছোট মহাকাশ যানের মাধ্যমে একেবারে কাছে গিয়ে পরীক্ষা কাজ পরিচালনা করেছে। এতে আন্তর্জাতিক আইনের কোনও নিয়ম বা নীতির লঙ্ঘন হয়নি বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। আমেরিকা এবং ব্রিটেন মহাকাশে নিজেদের অস্ত্র মোতায়েন কার্যক্রমের ন্যায্যতা প্রমাণ এবং এ লক্ষ্যে আরও তহবিল অর্জনের জন্য বর্তমান পরিস্থিতিকে আবারও বিকৃত উপায়ে উপস্থাপনের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ তুলেছে রাশিয়া।

Related Articles

Back to top button
Close