fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

ব্যবহৃত কন্ডোম ধুয়ে শুকিয়ে ফের বিক্রি? ভিয়েতনামে ধরা পড়ল জালিয়াতি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রিসাইক্লিং কন্ডোম? হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন। ব্যবহৃত কন্ডোম ধুয়ে শুকিয়ে ফের প্যাকেটে ভরে চলছে বিক্রি । চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ভিয়েতনামের। সেখানকার দক্ষিণে বিনং দুয়ং প্রদেশে একটি গুদামে চলছে এই বেআইনি প্রক্রিয়া। কন্ডোমের সংখ্যা ও পরিমাণ দেখে, ব্যবসার আয়তন আন্দাজ করে কার্যত চোখ কপালে উঠেছে পুলিশের। পুলিশ জানিয়েছে, বড় বড় কয়েক ডজন ব্যাগে ভর্তি শুধুই কন্ডোম। সে সবই ব্যবহার করার পরে ধুয়ে শুকিয়ে প্যাকেটবন্দি করা। মোট ৩৬০ কেজি কন্ডোম বাজেয়াপ্ত হয়েছে, সংখ্যার হিসেবে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষটি! এই চরম বিপজ্জনক ও জঘন্য জালিয়াতিতে এক মহিলাকে গ্রেফতারও করেছে  ভিয়েতনামের সরকারি টিভি চ্যানেল ভিটিভি জানিয়েছে, পুলিশ হানা দিলে একটি গুদাম ঘর থেকে প্রচুর পরিমাণে ফের বিক্রির জন্য তৈরি ব্যবহার করা কন্ডোম পাওয়া গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, ওই গুদাম ঘরে বড় বড় ব্যাগে ভরা ছিল ওই সব কন্ডোম। কয়েক ডজন বড় ব্যাগ বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। যার মধ্যে মোট ৩৬০ কেজি কন্ডোম। এতে মোট ৩ লাখ ৪৫ হাজার কন্ডোম রয়েছে। পুলিশ বাজেয়াপ্ত কন্ডোমের সঙ্গে এক মহিলাকেও আটক করেছে। এই চরম বিপজ্জনক ও জঘন্য জালিয়াতিতে এক মহিলাকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: সিবিআই রাডারে বহু রাঘব বোয়াল… গরুপাচার কাণ্ডে চাঞ্চল্যকর তথ্য

ধৃত মহিলা জেরার মুখে পুলিশের কাছে জানিয়েছেন, বিভিন্ন আবর্জনার স্তূপ থেকে কন্ডোম খুঁজে খুঁজে জড়ো করা হয়।বলেছেন, প্রথম গরম জলে ধুয়ে নেওয়া হয় ব্যবহার করা কন্ডোম। এর পর তা শুকিয়ে নকল পেনিসের মধ্যে পরিয়ে আকার ঠিক করে, ফের নতুনের মতো করে তোলা হয়। তারপর বিক্রির জন্য প্যাকেটজাত করা হয়। এর জন্য তিনি প্রতি কেজিতে ০.১৭ ডলার করে পান। এই ধরনের কন্ডোম শুধু কি ভিয়েতনামেই বিক্রি হয় নাকি অন্য দেশেও পাঠানো হয়? তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে, এর সঙ্গে কোনও আন্তর্জাতিক চক্র জড়িত রয়েছে কিনা। এদিকে গুদামঘরের মালিক পুলিশি জেরায় স্বীকার করে নিয়েছেন যে এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির থেকে তিনি ব্যবহত কন্ডোম পেতেন। এখনও পর্যন্ত ঠিক কত পরিমাণ ব্যবহৃত কন্ডোম এভাবে বিক্রি হয়েছে, তার তধ্য মেলেনি।

Related Articles

Back to top button
Close